বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরিবার সূত্র জানায়, তিন বছর আগে আওয়াল পাবনা সদরের হেমায়েতপুর এলাকায় বিয়ে করেন। তাঁর স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা। শিগগিরই সন্তান প্রসবের সম্ভাবনা রয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় আওয়াল বাড়ি থেকে শ্বশুরবাড়িতে যান। আজ সকাল সাড়ে নয়টার দিকে শ্বশুরবাড়ি থেকে নিজ মোটরসাইকেলে করে বাড়ির উদ্দেশে বের হন।

সকাল পৌনে ১০টার দিকে মুঠোফোনে আওয়ালের সঙ্গে তাঁর বাবার সর্বশেষ কথা হয়। ছেলে তাঁকে জানান, আধঘণ্টার মধ্যে বাড়িতে পৌঁছাবেন। এরপর আর তিনি বাড়িতে ফেরেননি। সর্বশেষ রাত পৌনে আটটায়ও তাঁর ফোন বন্ধ রয়েছে।

আওয়ালের বাবা মোহাম্মদ দর্পণ প্রথম আলোকে বলেন, সকাল পৌনে ১০টার দিকে মুঠোফোনে তাঁর ছেলের সঙ্গে সর্বশেষ কথা হয়। ছেলে তাঁকে জানান, আধঘণ্টার মধ্যে বাড়িতে পৌঁছাবেন। এরপর এক ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও বাড়িতে আসেননি। মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। সর্বশেষ রাত পৌনে আটটায়ও তাঁর ফোন বন্ধ রয়েছে। তিনি আরও বলেন, পারিবারিক কোনো ঝামেলা নেই। এমনকি শ্বশুরবাড়িতেও কোনো সমস্যা নেই। কেন কী কারণে কী হয়েছে, কিছুই বুঝতে পারছেন না। পরিবারের সদস্যরা উদ্বিগ্ন। পাবনা সদর থানায় সন্ধ্যায় পরিবারের সদস্যরা গেছেন।

যোগাযোগ করা হলে পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বলেন, এ ব্যাপারে কিছুই জানা নেই তাঁর। এ ঘটনা জানাতে থানায় কেউ আসেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন