default-image

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় শ্বশুরের কিলঘুষিতে আনছার আলী (৫০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাতে উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের বেঙ্গুলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আনছার আলী রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার ষোলাগাড়ী গ্রামের আজগর আলীর ছেলে। তিনি বেঙ্গুলিয়ায় শ্বশুর মো. চান মিয়ার বাড়িতে থাকতেন।

পলাশবাড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মতিউর রহমান বলেন, চান মিয়ার মেয়ে হামিদা বেগমের স্বামী আনছার আলী। বিয়ের পর থেকেই আনছার শ্বশুরবাড়িতে বসবাস করে আসছেন। ঘটনার দিন শুক্রবার সন্ধ্যায় পারিবারিক বিষয় নিয়ে শ্বশুর-জামাইয়ের মধ্যে কথা–কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে শ্বশুর চান মিয়া আনছার আলীর বুকে ও পেটে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারতে থাকেন। এতে তিনি গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে তাঁর আত্মীয়স্বজন তাঁকে উদ্ধার করে পলাশবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গভীর রাতে তিনি মারা যান।

বিজ্ঞাপন

নিহতের স্ত্রী হামিদা বেগম বলেন, তাঁর স্বামী ও সন্তান ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করেন। তাঁরা সম্প্রতি বাড়িতে এসেছেন। হামিদা বেগমের দাবি, তাঁর বাবা বাড়িতে নতুন ঘর দেওয়ার জন্য আনছারের কাছে টাকা দাবি করেন। ওই টাকা না পেয়ে চান মিয়া কিলঘুষি মারেন। সে জন্য তাঁর স্বামীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি এর বিচার চান।

পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে রাতেই লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী হামিদা বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলায় চান মিয়াকে একমাত্র আসামি করা হয়। ঘটনার পর থেকে চান মিয়া পলাতক। তাঁকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন