শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ি ইউনিয়নের শংকরকাটি সরকারি প্রাথমিক কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা আরিফা খাতুন বলেন, গতবার ভোট দিতে এসে শুনেছেন তাঁর ভোট দেওয়া হয়ে গেছে। এবার যাতে তাঁর ভোট কেউ দিতে না পারে, এ জন্য সকালে এসেছেন ভোট দিতে।

রমজাননগর ইউনিয়নের মানিকখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে অম্বিকা রানী মন্ডল জানান, এবার তিনি জীবনের প্রথম ভোট দিতে এসেছেন। প্রথম ভোট দেবেন বলে লাইনের প্রথমে দাঁড়িয়েছেন।

একই কেন্দ্রে বর্ষীয়ান কমলা রানী মন্ডল বলেন, ভোট দিতে আসার আগে ভোট দেওয়া একটা সংস্কৃতিতে পরিণত হয়েছে। যাতে নিজের ভোট নিজের মতো দিতে পারেন, এ জন্য আগেভাগে এসেছেন।

মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের উত্তর কদমতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কথা হয় আবদুর রশিদ গাজীর সঙ্গে। তিনিসহ তাঁর পরিবারের পাঁচজন একসঙ্গে ভোট দিতে এসেছেন। তিনি বলেন, স্বাভাবিকভাবে ভোট হচ্ছে। কোনো ধরনের সমস্যা নেই। পরিবেশ বেশ ভালো। অনেক দিন পরে এমন সুন্দর পরিবেশে ভোট হচ্ছে।

রমজাননগর চাঁদখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা রুহুল আমিন জানান, দুজন সদস্য প্রার্থীর প্রতীক বদল হয়ে যাওয়ায় এই কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শুরু করা যায়নি।

শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুজার গিফারি জানান, প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ ও আনসার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। রয়েছে র‍্যাব সদস্য ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মোবাইল দল। তিনি আরও বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হচ্ছে। কোথাও কোনো সমস্যা নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন