বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায়, পুলিশের সামনেই অতর্কিতভাবে রামদা, ছুরি, দা, বঁটি ও লাঠিসোঁটা নিয়ে শেখবর আলীর ওপর উপর্যুপরি আঘাত করেন প্রতিপক্ষের লোকজন। ঘটনার আকস্মিকতায় পুলিশ হতবিহ্বল হয়ে এগিয়ে আসার চেষ্টা করলে তাদের প্রতি তেড়ে আসেন খুনিরা। এক-দুই মিনিটের মধ্যেই পুরো হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে ও পুলিশের প্রতি তেড়ে আসার ঘটনাও ভিডিওতে দেখা যায়।

এ ব্যাপারে শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস সোমবার রাতে প্রথম আলোকে বলেন, ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় শেখবর আলীর ছোট ভাই মাহফুজ মিয়া বাদী হয়ে ২৪ জনের নাম উল্লেখ ও ১৫ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় হত্যা মামলা করেন। ইতিমধ্যে এজহারনামীয় প্রধান আসামি জাকির, তাঁর ভাই জজ মিয়া ও সাইফুলসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বর্তমানে তাঁরা জেলা কারাগারে আছেন।

হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় গ্রেপ্তার জাকির ও সাইফুল আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। এ ছাড়া ঘটনার সময় উপস্থিত এসআই ওয়ারেস আলীকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২৪ মার্চের প্রথম আলোর অনলাইন সংস্করণে এ বিষয়ে ‘জমি নিয়ে বিরোধের জেরে একজনকে কুপিয়ে হত্যা, আহত ২’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন