ফায়ার সার্ভিসের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ওই পিকআপ ভ্যানে সুজন ও আরেক ব্যক্তি মাছ নিয়ে মৌলভীবাজারে যাচ্ছিলেন। পিকআপ ভ্যানটি ঢাকা-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কের পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। এ সময় পিকআপ ভ্যানটি সড়কের পাশের একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। পরে স্থানীয় লোকজন পিকআপ ভ্যান থেকে একজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় বের করে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা বিভিন্ন সরঞ্জাম ব্যবহার করে পিকআপ ভ্যানের ভেতর আটকে থাকা চালক সুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। তবে হাসপাতালে নেওয়ার পর সেখানকার জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

শ্রীমঙ্গল ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন কর্মকর্তা মো. আবু তাহের মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, খবর পাওয়ার পরপরই ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই স্থানীয় লোকজন একজনকে হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছেন। তবে পিকআপের চালক ভেতরে আটকে ছিলেন। বিভিন্ন সরঞ্জাম ব্যবহার করে তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন