চা শ্রমিক ইউনিয়নের সহসভাপতি পঙ্কজ কন্দের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চা শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাহী উপদেষ্টা ও কমলগঞ্জ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রামভজন কৈরি, উপদেষ্টা অঞ্জন দত্ত ও পরাগ বাড়ই, বাংলাদেশি চা সংসদের আহ্বায়ক ও ফিনলে টির সিইও তাহসিন আহমেদ চৌধুরী প্রমুখ।

রামভজন কৈরি প্রথম আলোকে বলেন, ‘চা শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে প্রতিবছরই মে দিবস উপলক্ষে সমাবেশসহ নানা কর্মসূচি পালিত হয়। চা–শ্রমিকেরা এখনো নির্যাতিত ও নিপীড়িত। এই সমাবেশের মাধ্যমে আমরা আমাদের অধিকার ন্যায্য দাবি তুলে ধরি। বঞ্চনা, নির্যাতন ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে সংগ্রাম চালিয়ে যাই।’

রামভজন কৈরি আরও বলেন, চা–বাগান সৃষ্টি হওয়ার প্রায় পৌনে ২০০ বছর হয়ে গেছে। এখনো চা–শ্রমিকেরা তাঁদের ন্যায্য অধিকার পাননি। শ্রমিকদের মজুরি খুবই কম। শ্রমিক-মালিক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি মালিক পক্ষ মানছে না। ২০১৯ সালে শ্রমিকদের মজুরি ১২০ টাকা করা হয়েছিল। ২০২২ সালে এসে ১২০ টাকাই মজুরি রাখার জন্য মালিকপক্ষ পাঁয়তারা করছে। শ্রমিকদের উন্নয়নে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন