বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অগ্রবাণী প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক হারুন অর রশিদ চৌধুরী প্রথম আলোকে জানান, শুক্রবার রাত ১০টার দিকে দেওভোগ থেকে তাঁর ছেলে নির্বাহী সম্পাদক রাশিদ চৌধুরী ও জসিম হোসেন চাষাঢ়া যাচ্ছিলেন। বোয়ালিয়া খালের সামনে এলে অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজন কিশোর এসে বলে, ‘তোরা সাংবাদিক, পত্রিকায় আমাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিয়ে মহড়ার নিউজ করিস’—বলেই এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত শুরু করে। এ সময় তাঁদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে ওই কিশোরেরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখান থেকে তাঁদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। চিকিৎসক জানিয়েছেন, ২৪ ঘণ্টা না যাওয়া পর্যন্ত কিছুই বলা যাচ্ছে না। তিনি বলেন, রাশিদের ওপর হামলা হলে জসিম বাধা দেওয়ায় তাঁকেও কোপায় দুর্বৃত্তরা।

হামলার বিষয়ে অগ্রবাণী প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক হারুন অর রশিদ চৌধুরী বলেন, বোয়ালিয়া এলাকার কিশোর গ্যাংয়ের অস্ত্রের মহড়া নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছিল তাঁদের পত্রিকা। এর জের ধরে তাঁদের কোপানো হয়েছে। তাঁর ছেলে (রাশিদ চৌধুরী) কিছুটা সুস্থ হলেই মামলা করবেন বলে জানান তিনি।

ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তরিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, রাতে সাংবাদিকসহ দুজনকে ছুরিকাঘাতের সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। কারা কী কারণে এ ঘটনা ঘটিয়েছে, তা নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, এই ঘটনায় শনিবার দুপুর পর্যন্ত কেউ কোনো অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, ১১ মে রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অস্ত্র হাতে নারায়ণগঞ্জের কিছু কিশোরের মহড়া ও অন্য কিশোরকে মারধরের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন