default-image

কুষ্টিয়ায় খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির (প্রতি কেজি ১০ টাকা) চাল আত্মসাতের মামলায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান, সদস্য, ডিলারসহ চারজনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় কুষ্টিয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মহসিন হাসান তাঁদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে আসামিরা আদালতে উপস্থিত হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে জামিন আবেদন করেন। বিচারক তাঁদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। আসামিরা হলেন সদর উপজেলার গোস্বামী দুর্গাপুর ইউপির চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দবির উদ্দিন বিশ্বাস, ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মারুফুল ইসলাম, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চালের ডিলার মন্টু হোসেন এবং ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সরোয়ার হোসেন।

বিজ্ঞাপন

আদালত সূত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান দবির উদ্দিন বিশ্বাস ও তাঁর সহযোগীদের যোগসাজশে চার বছর ধরে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির সরকারি চাল উত্তোলন করছেন। সেসব চাল তালিকাভুক্ত ব্যক্তিদের না দিয়ে তাঁরা আত্মসাৎ করেছেন। এ-সংক্রান্ত সংবাদ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারিত হলে কুষ্টিয়ার আদালতের দৃষ্টিগোচর হয়। পরে ওই ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে গত ১৯ এপ্রিল কুষ্টিয়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সেলিনা খাতুনের ইস্যু করা ক্রিমিন্যাল মিসকেস নম্বর ০১/২০২০-তে মামলা হয়। তদন্ত করে ২ জুনের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আদেশ দেওয়া হয়।

কুষ্টিয়ার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সহকারী কৌঁসুলি (এপিপি) সুমিত্রা বিশ্বাস জানান, গোস্বামী দুর্গাপুর ইউনিয়নে সরকারি চাল আত্মসাতের ঘটনায় চেয়ারম্যানসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছিল। আসামিরা আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করেন। বিচারক তাঁদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

মন্তব্য পড়ুন 0