বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সরকারি চাল পাচারের চেষ্টার অভিযোগে কবিরহাট উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. সালাউদ্দিন বৃহস্পতিবার বিকেলে মামলা করেছেন। কাছারিরহাট বাজার এলাকার খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পরিবেশক মো. হাফিজ উল্যাহ (৩২) ও ওই চাল বহনকারী রিকশার চালক দেলোয়ার হোসেনকে আসামি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে কবিরহাট উপজেলার কাছারিরহাট বাজারে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির পরিবেশক হাফিজ উল্যাহর দোকান থেকে চার বস্তা চাল রিকশায় নিয়ে যাওয়ার পথে স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হয়। তখন তাঁরা রিকশাচালক দেলোয়ার হোসেনকে চালের বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি কাছারিরহাট বাজারের পরিবেশক হাফিজ উল্যাহর দোকান থেকে চালগুলো পাশের ইলিয়াস নামের এক বাড়িতে নিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান। এ সময় স্থানীয় লোকজন চালের বস্তাগুলোসহ রিকশাচালককে আটক করে থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে রিকশাচালক ও চাল জব্দ করে থানায় নিয়ে আসে।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. সালাউদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, ‘জব্দ করা চালগুলো সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল বলে প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেছে। আজ সকালে চালগুলো ডিলারের দোকান থেকে অন্যত্র পাচার করা হচ্ছিল। তাই এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট এলাকার ডিলার হাফিজ উল্যাহ ও রিকশাচালককে আসামি করে তিনি বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। ওই মামলায় এরই মধ্যে পুলিশ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, সকালে উপজেলার কাছারিরহাট বাজার এলাকার বাসিন্দারা সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চালসহ এক রিকশাচালককে আটক করে থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে চালসহ ওই রিকশাচালককে আটক করে। পরে এ ঘটনায় খাদ্য বিভাগের পক্ষ থেকে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়। ওই অভিযোগটি বিশেষ ক্ষমতা আইনে নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত চালের পরিবেশক হাফিজ উল্যাহকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আগামীকাল শুক্রবার গ্রেপ্তার দুই আসামিকে আদালতে পাঠানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন