default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলায় নিখোঁজের চার দিন পর সজল দাস (৪৫) নামের এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে উপজেলার কালীকচ্ছ ইউনিয়নের নন্দীপাড়া গ্রামের একটি পুকুর থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

সজল দাস নন্দীপাড়া গ্রামের চরণী দাসের ছেলে। তিনি পেশায় মৎস্যজীবী ছিলেন।  

পুলিশ ও পরিবারের লোকজন জানান, গত শনিবার দুপুরের খাওয়া শেষ করে সজল দাস বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন। পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাঁর কোনো সন্ধান করতে পারেননি। গতকাল সন্ধ্যায় প্রতিবেশীরা গ্রামের একটি পুকুরে অর্ধগলিত একটি লাশ ভাসতে দেখেন। এরপর পরিবারের লোকজন গিয়ে সজল দাসের লাশ শনাক্ত করেন। পুকুরটি তাঁর বাড়ি থেকে ১০০ মিটার দূরে।

বিজ্ঞাপন

সজল দাসের স্ত্রী কৈলাস রানী দাস (৪০) জানান, তাঁর স্বামী কিছুটা মানসিক রোগী ছিল। প্রায় সময়ই সজল দাস বাড়ি থেকে বের হয়ে কয়েক দিন নিখোঁজ থাকতেন। পরে ফিরে আসতেন। এ ছাড়া তিনি মৃগীরোগীও ছিলেন।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এম এম নাজমুল আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘পরিবারের লোকজনের কোনো আপত্তি না থাকায় তাঁর লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন