বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সিলেটগামী তাশপিয়া পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস সকাল ১০টার দিকে ইসলামাবাদ এলাকায় যাত্রীবাহী ব্যাটারিচালিত একটি অটোরিকশাকে চাপা দিয়ে মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে অটোরিকশার যাত্রী জাহারা বেগম, তাঁর মেয়ে সুরাইয়া বেগম (০৮) ও মা হেলেনা বেগম (৬০) গুরুতর আহত হন। তাঁদের উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক জাহারা বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন।

জাহারা বেগমের বড় ভাই বাচ্ছু মিয়া (৪৭) প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর মা, বোন ও ভাগনি একটি অটোরিকশায় ইসলামাবাদ গ্রাম থেকে সদর উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নের মজলিশপুর গ্রামে বাবার বাড়িতে ঈদ উপলক্ষে বেড়াতে যাচ্ছিলেন। অটোরিকশায় চড়ে স্বামীর বাড়ি থেকে মহাসড়কের সামান্য পথ অগ্রসর হওয়ার পরপরই যাত্রীবাহী বেপরোয়া গতির একটি বাস অটোরিকশাটিকে চাপা দিয়ে মহাসড়কের পাশে পড়ে যায়। এতে জাহারা বেগম মারা যান।  

এদিকে এই সময়ে একই এলাকায় সিলেট থেকে ছেড়ে আসা সাগরিকা পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস মহাসড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে অন্তত ১০ যাত্রী কম বেশি আহত হয়েছেন।  

সরাইল খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুখেন্দ্র বসু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, ওই নারীর লাশ পরিবারের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। বাস ও অটোরিকশাটি জব্দ করা হয়েছে। অটোরিকশার দুইি যাত্রী জেলা সদরে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে বাসের কোনো যাত্রী তেমন আহত হননি। এ ব্যাপারে থানায় মহাসড়ক আইনে মামলার প্রক্রিয়া চলছে। সাগরিকা বাসটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন