বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিনের মতো আজ সকাল নয়টা থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিক্ষার্থীদের করোনার টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া শুরু হয়। বেলা আড়াইটার দিকে এক শিক্ষার্থী আগে টিকা দেওয়ার জন্য হট্টগোল শুরু করে। এ সময় আরএমও শাহেদুর রহমান ওই শিক্ষার্থীকে বুঝিয়ে বসিয়ে রাখেন। ১০ মিনিট পর ওই শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হলেও সে আবার চিকিৎসকদের সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডা শুরু করে। কিছুক্ষণ পর শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আরও কিছু লোক হাসপাতালের ভেতর ঢুকে হামলা চালান। এ সময় ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জানালার গ্লাস ও চেয়ার–টেবিল ভেঙে ফেলা হয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গেলে শাহেদুর রহমান, আসাদুজ্জামান খানসহ দুজন অ্যাম্বুলেন্সচালকের ওপর হামলা চালানো হয়। এ সময় ওই চারজন গুরুতর আহত হন। তাঁরা বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

খবর পেয়ে সরিষাবাড়ী থানা–পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় প্রায় আধা ঘণ্টা টিকাদানসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সব সেবা বন্ধ ছিল।

টিকা নিতে আসা যমুনা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রফিকুল ইসলাম বলে, হঠাৎ দুপুরে হাসপাতালের ভেতরে হট্টগোল শুরু হয়। তখন টিকা দেওয়া বন্ধ ছিল। এরপর কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে সে হাসপাতালের বাইরে চলে যায়।

হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সঙ্গে থাকা কোহিনূর বেগম বলেন, ‘ডাক্তারদের মারধর করার সময় রোগী নিয়ে আমরা ভয়ে ছিলাম। পরে পুলিশ আইসে শান্ত করছে।’

শাহেদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, এক শিক্ষার্থী সিরিয়াল না মেনে আগে টিকা নেওয়ার জন্য দাবি করছিল। কিছুক্ষণ বসিয়ে রাখার পর তাঁকে টিকা দেওয়া হয়। কিন্তু ওই শিক্ষার্থীর পরিচয় জানা যায়নি। ওই শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়ার পরই তারা একদল দুর্বৃত্ত নিয়ে তিনিসহ হাসপাতালের চিকিৎসক ও কর্মীদের ওপর হামলা চালায়।

এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা গাজী মোহাম্মদ রফিকুল হক সরিষাবাড়ী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। রফিকুল হক বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি জিডি করা হয়েছে। দুর্বৃত্তরা হামলা করে হাসপাতালে ভাঙচুর করেছে। ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ দেখা হচ্ছে। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হবে।

সরিষাবাড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল মজিদ বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হামলার ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় কোনো লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আজ উপজেলার যমুনা উচ্চবিদ্যালয়, দৌলতপুর উচ্চবিদ্যালয়, বারইপটল উচ্চবিদ্যালয়, শুয়াকৈর জমসের আলী উচ্চবিদ্যালয়, শেখ খলিলুর রহমান ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট ও বগারপাড় উচ্চবিদ্যালয়ের ২ হাজার ৪৭৩ জন শিক্ষার্থীকে করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন