default-image

বাগেরহাটে সহকর্মীকে বেড়াতে নিয়ে গিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে এক দলিল লেখকসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর আগে গতকাল বুধবার রাতে বাগেরহাট সদর মডেল থানায় ভুক্তভোগী ওই তরুণী (২৫) বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়নের কালদিয়া গ্রামের বাসিন্দা আলমগীর হোসেন ও শোভন শেখ। আলমগীর পেশায় জেলা জমি রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক। ধর্ষণের শিকার নারী তাঁর সহকর্মী ছিলেন। শোভন শেখ একই গ্রামের বাসিন্দা। পলাতক দুজনের বাড়িও ওই কালদিয়া গ্রামে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২৬ এপ্রিল (সোমবার) রাতে সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়নের কালদিয়া গ্রামের একটি রাইস মিলে ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ওই মেয়েটির বাড়ি বাগেরহাট সদর উপজেলায়।

বিজ্ঞাপন

মামলার বরাত দিতে বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম আজিজুল ইসলাম বলেন, পূর্বপরিচিত হওয়ায় ২৬ এপ্রিল সন্ধ্যায় দলিল লেখক ওই তরুণীকে বেড়ানোর কথা বলে আলমগীর হোসেন তাঁর গ্রামে নিয়ে যান। সেখানে যাওয়ার পর আরও তিনজনের সঙ্গে মেয়েটির পরিচয় হয়। এরপর মেয়েটিকে একটি মিলে আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন তাঁরা।

ওসি আজিজুল ইসলাম বলেন, গতকাল থানায় এসে মেয়েটি অভিযোগ দিলে সঙ্গে সঙ্গে অভিযান চালিয়ে দলিল লেখক আলমগীর ও শোভনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় ওই তরুণী বাদী হয়ে চারজনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ওই তরুণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। জড়িত অপর দুজনকে ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন