default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সহিংসতার ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তার ছাত্রলীগ কর্মী শেখ আরিফ মিয়া জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। গতকাল বুধবার তিনি জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পান। এর আগে মঙ্গলবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল দ্বিতীয় আদালতের বিচারক তাঁকে জামিন দেন।

শেখ আরিফ মিয়া সরাইল উপজেলার শ্রমিক লীগের সভাপতি শেখ আবুল কালামের ছেলে। তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের সদস্য এবং সরাইল সদর উপজেলা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী। সহিংসতার মামলায় তাঁর বয়স ২৫ বছর উল্লেখ করা হয়। তবে পরিবারের দাবি, আরিফের বয়স ১৬ বছর। আর পুলিশ বলছে, আরিফের বয়স ২০ বছর।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতাল পালনের সময় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের খাঁটি হাতা হাইওয়ে থানা ও থানার সামনের সড়কে কুট্টাপাড়া এলাকায় হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আটজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত তিন থেকে চার হাজার জনকে আসামি করে সরাইল থানায় মামলা করেন সার্জেন্ট মাইদুল ইসলাম। ১৪ এপ্রিল রাতে কুট্টাপাড়া এলাকা থেকে শেখ আরিফকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরদিন কুট্টাপাড়া মোড়ের সড়কে সংঘর্ষের মামলায় আরিফকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

বিজ্ঞাপন

আরিফের বাবা শেখ আবুল কালাম বলেন, উপজেলার কুট্টাপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ের এ বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থী আরিফ। তার বয়স ১৬ বছর। সহিংসতার ঘটনার সঙ্গে আরিফের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্বরোড মোড়ে আমার দোকান আছে। আরিফ দোকানে বসে। পার্ট টাইম বিশ্বরোড মোড়ের একটি সিএনজি পাম্পে কাজ করে। গত মঙ্গলবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া শিশু ও নারী নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল দ্বিতীয় আদালত তাকে জামিন দিয়েছেন। বুধবার আমার ছেলে জেলা কারাগার থেকে বের হয়েছে।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সরাইল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কবির হোসেন বলেন, বিভিন্ন তথ্য–উপাত্তের ভিত্তিতে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শেখ আরিফকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁর বয়স হবে ২০ বছর। কম্পিউটার অপারেটর হয়তো ভুলে মামলায় তাঁর বয়স ২৫ বছর উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে আরিফ পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন যে হেফাজতের মিছিলে তিনি গিয়েছিলেন এবং পুলিশের গাড়িতে হামলা চালিয়েছেন।

জেলা জজ আদালতের পরিদর্শক দিদারুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল দ্বিতীয় আদালত থেকে শেখ আরিফ মিয়ার জামিন হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। তার বয়স ১৮–এর নিচে বলে আদালত তাকে জামিন দিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন