বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওসি আবদুল্লাহ আল মামুনের দাবি, সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চলাফেরা করতেন আনোয়ার হোসেন। সাংবাদিকতার আড়ালে তিনি ইয়াবার ব্যবসা করতেন। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাঁকে ধরতে ক্রেতা সেজে ফাঁদ পাতা হয়। সেই ফাঁদে পা দেন আনোয়ার হোসেন। গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে বাড়ির পাশের কলাবাগানে ক্রেতা সেজে তাঁর কাছ থেকে ইয়াবা কেনার কথা জানানো হয়। পুলিশ তাঁকে হাতেনাতে আটক করে। এ সময় তাঁর দেহ তল্লাশি করে কোমরে লুকিয়ে রাখা ১২০টি ইয়াবা উদ্ধার করে।

ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন প্রথম আলোকে বলেন, আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করা হয়েছে। সেই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে আজ শনিবার তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন