নাঈমের চাচাতো ভাই নাজমুল হাসান বলেন, স্কুল ছুটির পর সাইকেল চালিয়ে বাড়িতে ফেরার পথে দীঘিরপাড় মোড় এলাকায় একটি ট্রাক্টর নাঈমকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। দুই ভাই ও এক বোনের মধ্যে নাঈম সবার ছোট। বোনের বিয়ে হয়ে গেছে। তার ভাই মেডিকেল ডিপ্লোমা শেষ করে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে ইন্টার্ন করছেন। নাঈমের প্রকৌশলী হওয়ার ইচ্ছা পথেই শেষ হয়ে গেল।

default-image

গেরদা এ এফ মুজিবুর রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম বলেন, আজ বেলা একটায় স্কুল ছুটি দেওয়া হয়। এর ১৫ মিনিট পরই খবর আসে ট্রাক্টরের চাপায় এক ছাত্র মারা গেছে। দ্রুত তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ সময় উত্তেজিত লোকজন ট্রাক্টরচালককে আটক করে মারধর করেন। বিষয়টি তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পুলিশকে জানান।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম এ জলিল বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ট্রাক্টরচালককে উদ্ধার করে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে চালকের নাম–ঠিকানা পাওয়া যায়নি। ট্রাক্টরটি জব্দ করা হয়েছে। নিহত নাঈমের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য একই হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সদর উপজেলার ইউএনও লিটন ঢালী বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। সেই সঙ্গে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে কথা বলে ওই ছাত্রের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার আশ্বাস দেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন