বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ট্রলারের মালিক ও মাঝি রুহুল আমিন (৫০) বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের বাসিন্দা। তবে ওই ট্রলারের আল-আমিন (২৫) নামের এক জেলের নাম জানা গেছে। অন্য চার জেলের নাম জানা যায়নি। ওই জেলেদের বাড়িও চরদুয়ানী ইউনিয়নে।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, রুহুল আমিন নামবিহীন ওই ট্রলারের মালিক হলেও তিনি ট্রলারের মাঝির দায়িত্ব পালন করছিলেন। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার সময় ট্রলারটি উল্টে গেলে রুহুল আমিন ঘটনাস্থলেই মারা যান। তবে ওই ট্রলারের অন্য পাঁচ জেলে সাগরে ভাসছিলেন। মাছ ধরার অন্য একটি ট্রলার তাঁদের উদ্ধার করে। মাছ শিকার শেষে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া দেখে তীরে ফেরার পথে তাঁরা এ দুর্ঘটনায় পড়েন।

গোলাম মোস্তফা আরও বলেন, নিহত ব্যক্তির লাশ ও অন্য জেলেদের আনতে সাগরের মেহেরআলী এলাকায় একটি ট্রলার পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে কোস্টগার্ডের পাথরঘাটা স্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট ফাহিম শাহরিয়ার প্রথম আলোকে বলেন, ‘ঘটনাটি আমরা শুনেছি। তবে ঘটনাস্থল আমাদের এই স্টেশনের আওতার বাইরে। তবু সার্বিক খোঁজখবর রাখছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন