বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় নিহত শাহীনুরের শাশুড়ি কলারোয়া উপজেলার উফাপুর গ্রামের রাশেদ গাজীর স্ত্রী ময়না খাতুন বাদী হয়ে ঘটনার পরদিন ১৫ অক্টোবর একটি হত্যা মামলা করেন।

গত বছরের ২৪ নভেম্বর রায়হানুর রহমানকে একমাত্র আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। এ বছরের ১৪ জানুয়ারি তাঁর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়।

ওই পরিবারের বেঁচে থাকা একমাত্র শিশু মারিয়া বর্তমানে হেলাতলা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য নাছিমা খাতুনের কাছে বড় হচ্ছে।

সাতক্ষীরা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি আবদুল লতিফ বলেন, হত্যাকাণ্ডের ১১ মাস পর মামলার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। উচ্চ আদালতেও এই রায় বহাল থাকবে বলে তিনি আশাবাদী।

আসামিপক্ষের আইনজীবী এস এম হায়দার আলী বলেন, মামলার পূর্ণাঙ্গ আদেশ পাওয়ার পর পর্যালোচনা করে রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন