default-image

‘এ বছরের শীতে খুব কাবু হয়া গেছনু। শীতের কষ্ট সহ্য করবা না পারা কয়েক দিন বাড়ির মধ্যেই আছনু। কম্বল পায়া হামার খুব উপকার হলো।’ আজ শুক্রবার সকালে বগুড়ার সান্তাহার জংশন শহরের মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট এলাকায় কম্বল নিতে এসে ৬৫ বছরের বৃদ্ধা আয়শা খাতুন এভাবেই তাঁর প্রতিক্রিয়া জানান।

প্রথম আলো ট্রাস্টের উদ্যোগে আজ সকালে সান্তাহার শহর ও আশপাশের গ্রামের ১০০ দরিদ্র ও শীতার্ত মানুষের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়। আয়শা খাতুনের মতো উপজেলার ছাতনী গ্রামের বৃদ্ধ নারী তছিরন বেগম, আমেনা খাতুন, লাইলী বানু, দমদমা গ্রামের শাপলা খাতুন, বৃদ্ধ আশরাফ আলী, হযরত আলীসহ অনেকে পান কম্বল। তাঁরা সবাই কম্বল পেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এর আগে সান্তাহার ও আদমদীঘি এলাকার ১০ জন পত্রিকা বিক্রেতার হাতে কম্বল তুলে দেওয়া হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সান্তাহার বন্ধুসভার সদস্যরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে শীতার্ত মানুষের হাতে স্লিপ পৌঁছে দেন। আজ সকাল ১০টা থেকে শীতার্তদের মধ্যে কম্বল তুলে দেন সান্তাহার বন্ধুসভার সদস্যরা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সান্তাহার নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম আম্বিয়া, সহকারী অধ্যাপক দিলীপ কুমার, পৌর কাউন্সিলর জার্জিস আলম, সাংবাদিক হারেজুজ্জামান, প্রথম আলোর আদমদীঘি প্রতিনিধি খায়রুল ইসলাম, সান্তাহার বন্ধুসভার সভাপতি অধ্যাপক রবিউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিবসহ বন্ধুসভার বন্ধুরা।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন