বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলনে ওসি তারেকুর রহমান দাবি করেন, গত শনিবার রাতে উপজেলার খঞ্জনপুর এলাকায় পুলিশের পোশাক পরে কিছু দুর্বৃত্ত শান্ত হোসেন নামের এক ব্যক্তির মোটরসাইকেল ছিনতাই করে। ওই ঘটনায় গতকাল রোববার সকালে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন মোটরসাইকেলটির মালিক। ওই অভিযোগের তদন্তে নেমে জানা যায়, এ ঘটনার সঙ্গে উপজেলার নিশ্চিন্তপুর দিঘীপাড়া গ্রামের সোলাইমান হোসেনের ছেলে আক্তার জড়িত রয়েছেন। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আজ সকাল ৮টার দিকে সাপাহার থানা–পুলিশের একটি দল আক্তারের বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় তাঁর বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের এক সেট পোশাক, পাঁচটি মুঠোফোন, একটি হাঁসুয়া, একটি অ্যান্টিকাটার, তিনটি টর্চ ও একটি বড় মাপের লোহাকাটা প্লাস উদ্ধার করা হয়। এ সময় পুলিশ সদস্যরা আক্তারকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আক্তার হোসেন শনিবার রাতে খঞ্জনপুর এলাকায় মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি মোটরসাইকেল ছিনতাইকারী চক্রের একজন সদস্য। ওই চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে পুলিশ ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পোশাক পরে নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী ও জয়পুরহাট অঞ্চলে ছিনতাই ও ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছে। তাঁর দেওয়ার তথ্যের ভিত্তিতে ছিনতাই হওয়া মোটরসাইকেল ও ওই চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ বিকেলে আদালতের মাধ্যমে আক্তারকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন