বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাহাবুদ্দীনের মা মমেদা বেওয়া ও স্ত্রী শাহনাজ পারভীন জানান, গতকাল রাত একটার দিকে সাহাবুদ্দীন আরও ছয়-সাতজনের সঙ্গে গরু আনতে উপজেলার কলমুডাঙ্গা সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে প্রবেশ করেন। এ সময় ভারতের সনঘাট বিএসএফ ক্যাম্পের সদস্যরা তাঁদের ধাওয়া করেন। অন্যরা পালিয়ে বাংলাদেশে আসতে পারলেও সাহাবুদ্দীন সীমান্তের শূন্যরেখা থেকে ভারতের ভেতরে বিএসএফের হাতে আটক হন। সাহাবুদ্দীনের সঙ্গীরা রাতেই স্ত্রী ও মাকে তাঁর আটক হওয়ার কথা জানান।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) কলমুডাঙ্গা সীমান্ত চৌকির (বিওপি) ক্যাম্প কমান্ডার এমদাদ হোসেন আজ বিকেলে মুঠোফোনে বলেন, ‘লোকমুখে উপজেলার পূর্ব কলমুডাঙ্গা গ্রামের এক ব্যক্তি ভারতে গরু আনতে গিয়ে বিএসএফের হাতে আটক হয়েছেন বলে শুনেছি। তবে এখন পর্যন্ত পরিবারের পক্ষ থেকে ক্যাম্পে কেউ কোনো অভিযোগ নিয়ে আসেননি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’

বিজিবি-১৬ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. আসাদুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, সীমান্তের ওপারে একজন বাংলাদেশি বিএসএফের হাতে আটক হয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে। কিন্তু পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো অভিযোগ দেওয়া হয়নি। সাধারণত ভারতে অবৈধভাবে প্রবেশ করে গরু কিংবা মাদক চোরাচালানে জড়িত থাকার অভিযোগে কেউ বিএসএফের হাতে আটক হলে সঙ্গে সঙ্গে তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে থানায় দিয়ে দেয় বিএসএফ। সে ক্ষেত্রে তাঁদের কিছুই করার থাকে না। তারপরও পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। নিরপরাধ কেউ আটক হলে তাঁকে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন