বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ দুপুর ১২টার দিকে সিটি সেন্টার থেকে মুঠোফোনের ব্যাটারি কেনেন ফাতেমা। এরপর তিনি বন্ধুর সঙ্গে দেখা করার জন্য সিটি সেন্টারের সামনে থেকে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় ওঠেন। কিছুদূর এগোতেই ফাতেমার ওড়না অটোরিকশার চাকায় পেঁচিয়ে গেলে তিনি রাস্তায় পড়ে যান।

প্রত্যক্ষদর্শী আহমেদ জীবন প্রথম আলোকে বলেন, একটি মেয়েকে রিকশার চাকায় ওড়না পেঁচিয়ে রাস্তায় পড়ে যেতে দেখার পর আশপাশের লোকজন মিলে তাঁকে পাশের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে ওই মেয়ের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখান থেকে অন্য আরেকটি বেসরকারি হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত মেয়েটির বাবা মো. দেলোয়ার হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ‘রিকশার চাকায় ওড়না পেঁচিয়ে আমার মেয়ে মারা গেছে। এ ঘটনায় আমাদের কোনো অভিযোগ নেই। আমরা লাশ বাড়ি নিয়ে যেতে চাই।’

এদিকে আজ সকাল ৮টার দিকে আশুলিয়ার বাইশমাইল এলাকায় গাড়িচাপায় সাইফুল ইসলাম (৩৬) নামে এক মোটরশ্রমিক নিহত হয়েছেন। নিহত সাইফুল ইসলাম নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানার তালুয়াচাঁদপুর গ্রামের শফিউল্লাহ হোসেনের ছেলে। খবর পেয়ে সাভার হাইওয়ে পুলিশ নিহত ওই ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে। নিহত সাইফুলের পরিবারের সদস্যদের খবর দেওয়া হয়েছে।

সাভার হাইওয়ে থানার ওসি মো. আতিকুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, উভয় ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে। শিক্ষার্থীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন