সুনামগঞ্জের শাল্লার নোয়াগাঁওয়ে হামলার প্রতিবাদে ‘সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী দেয়ালে’ লাল-সবুজে রং মেখে হাতের ছাপ দেয় প্রজন্মের উত্তরসুরী শিশুরাও। আজ শুক্রবার বিকেলে সিলেট নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে
সুনামগঞ্জের শাল্লার নোয়াগাঁওয়ে হামলার প্রতিবাদে ‘সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী দেয়ালে’ লাল-সবুজে রং মেখে হাতের ছাপ দেয় প্রজন্মের উত্তরসুরী শিশুরাও। আজ শুক্রবার বিকেলে সিলেট নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনেপ্রথম আলো

সাদা ব্যানার দেয়ালে সাঁটানো। এক পাশে ‘সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী দেয়াল’ লিখে পুরোটা ফাঁকা। এই ফাঁকা স্থানে কেউ দুই হাতে লাল ও সবুজ রং লাগিয়ে দিয়েছেন হাতের ছাপ। এ এক অঙ্গীকার। আজ শুক্রবার স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপনের দিন সকালে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস এবং বিকেলে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এমন কর্মসূচি পালন করেছে ‘আমরা একাত্তর’ ও ‘অঙ্গীকার বাংলাদেশ’ নামের দুটি সংগঠন। শিক্ষার্থী, সংস্কৃতিকর্মী থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী ব্যক্তি, দল–মতনির্বিশেষে মানুষজন এ কর্মসূচিতে একাত্ম হয়ে সংহতি জানান।

শাল্লার সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে ‘সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী দেয়াল’ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। ফেসবুকে হেফাজতে ইসলামের নেতা মাওলানা মামুনুল হককে নিয়ে আপত্তিকর পোস্ট দেওয়া হয়েছে অভিযোগ তুলে সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁওয়ে ১৭ মার্চ সকালে পাশের চার গ্রামের মানুষ লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালান। এ সময় গ্রামের বাড়িঘর ও মন্দির ভাঙচুর এবং লুটপাট করা হয়। এ ঘটনায় শাল্লা থানায় দুটি মামলা হয়েছে। পুলিশ এ পর্যন্ত ৩৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

default-image

আয়োজকেরা জানিয়েছেন, সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সাঁটানো দেয়ালে হাতের ছাপ দিয়ে সংহতি জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। বিকেল পাঁচটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সিলেটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে কর্মসূচির দ্বিতীয় পর্বে সংস্কৃতিকর্মীরা একাত্ম হন। বিকেল পাঁচটায় হাতের ছাপ দিয়ে কর্মসূচির সূচনা করেন সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের সভাপতি মিশফাক আহমদ চৌধুরী। এরপর কর্মসূচির সমন্বয়ক, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক নাজিয়া চৌধুরী হাতের ছাপ দেন। এরপর পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী দেয়াল নামের ব্যানারে স্বতঃস্ফূর্তভাবে হাতের ছাপ দিয়ে সংহতি জানান।

বিজ্ঞাপন

দেয়ালের এক পাশে রাখা ছিল লাল ও সবুজ রং। কেউ কেউ দুই হাতে দুই রং মেখে ব্যানারে ছাপ রেখে সংহতি জানান। সংস্কৃতিকর্মী অরূপ বাউল শিশুপুত্রকে সঙ্গে নিয়ে সপরিবার এসেছিলেন সেখানে। হাতের ছাপ দিয়ে অরূপ বলেন, ‘আমাদের অনন্য এক অর্জন স্বাধীনতা। স্বাধীনতার ৫০ বছর উদ্‌যাপনের প্রাক্কালে শাল্লার ঘটনা আমদের উদ্বিগ্ন করলেও আমরা দৃঢ়তার সঙ্গে বলব, বাংলাদেশ সব ধর্মের মানুষের দেশ।’ সম্মিলিত নাট্য পরিষদের সভাপতি মিশফাক আহমদ চৌধুরী বলেন, ‘লাল–সবুজের এই ছাপ শুধু একটি কর্মসূচি নয়, এটি মা-মাটিরই একটি নীরব প্রতিবাদ। আমরা সাম্প্রদায়িকতামুক্ত বাংলাদেশ চাই।’

default-image

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও বিশ্ববিদ্যালয়ে সাঁটানো দীর্ঘ ব্যানারে সহস্রাধিক ব্যক্তি হাতের ছাপ দিয়ে সংহতি জানিয়েছেন উল্লেখ করে কর্মসূচির সমন্বয়ক নাজিয়া চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, ‘অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধারা যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছেন। অনেক মা-বোনের আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন করেছি। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপনের প্রাক্কালে শাল্লার ঘটনাটি আমাদের দারুণভাবে মর্মাহত করেছে। এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে আর না হয়, এ জন্য এই দেয়ালে হাতের ছাপ কর্মসূচি। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ হোক, এই একটিই আমাদের অঙ্গীকার।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন