বিজ্ঞাপন

সাংবাদিক নূরুল ইসলাম রঘুয়ারকান্দি গ্রামে মৃত মজিবর রহমানের ছেলে। পাঁচ ভাইয়ের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। নূরুল ইসলাম বিবাহিত ও দুই মেয়ের বাবা।

নূরুল ইসলাম অনলাইন পোর্টাল ঢাকা টাইমসের সালথা উপজেলা প্রতিনিধি। এর আগে তিনি দীর্ঘ সাত বছর ধরে দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার সালথা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তবে সম্প্রতি তাঁকে ওই পত্রিকা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

স্থানীয় সাংবাদিক আবু নাসির হোসেন বলেন, ৫ এপ্রিল সহিংস ঘটনার সময় তিনি, নূরুল ইসলামসহ কয়েকজন সাংবাদিক ইউএনও ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সঙ্গে উপজেলা কমপ্লেক্সের দোতলায় একই কক্ষে আটকা পড়েছিলেন। হামলাকারীরা যখন কমপ্লেক্স ভবনের নিচতলায় আগুন ধরিয়ে দেয়, তখন তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পাইপ বেয়ে নিচে নেমে আসেন। ওই ঘটনার নূরুল ইসলামকে হয়রানি করার কোনো সুযোগ নেই।

সালথা প্রেসক্লাবের সভাপতি সেলিম হোসেন মোল্লা বলেন, সালথার সাংবাদিকেরা বরাবরই ওই হামলার ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত করাসহ সহিংস ঘটনার বিপরীতে অবস্থান নিয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন। নূরুল ইসলামও তার বাইরে নয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন