বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিকেল পাঁচটায় নাগরিক সমাজের সমাবেশে বক্তব্য দেন শিল্পী ঢালি আল মামুন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম, ওয়ার্কার্স পার্টির চট্টগ্রাম জেলা সাধারণ সম্পাদক শরীফ চৌহান, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, সাংবাদিক নেতা মহসিন কাজী, সাংবাদিক ঋত্বিক নয়ন প্রমুখ।

সমাবেশে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আজ চট্টগ্রামের মানুষ জেগে উঠেছে। সংস্কৃতিকর্মীরা প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন। আমি বিশ্বাস করি, হাসপাতাল নির্মাণের এ চুক্তি অবিলম্বে বাতিল হবে। সিআরবি তার স্বরূপে বহাল থাকবে।’

বিকেল চারটায় একই স্থানে ‌‌‘‌‌‌‌'চট্টগ্রামের ফুসফুসখ্যাত সিআরবি ধ্বংসের পাঁয়তারা বন্ধ করো’ শীর্ষক স্লোগানে সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী চট্টগ্রাম জেলা সংসদ।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে উদীচী চট্টগ্রাম জেলা সংসদের আহ্বায়ক মাহবুবুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘সিআরবির পরিবেশ ধ্বংস করে এখানে হাসপাতালের কোনো প্রয়োজন নেই। সরকারি প্রতিষ্ঠানের জমি মানে জনগণের জমি। এখানে মানুষ হাসপাতাল চায় না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আমাদের রাষ্ট্রের সংবিধানে সমাজতন্ত্র অন্যতম স্তম্ভ। তাহলে কেন বেনিয়া পুঁজিতন্ত্রের কাছে পরাজিত হবেন? সংবিধানে উল্লেখ আছে, পরিবেশ ও ঐতিহ্য রক্ষা করতে হবে। তাহলে কেন তা রক্ষা করা হবে না? চট্টগ্রামের এমনকি সারা দেশের মানুষও এখানে হাসপাতাল চায় না। অবিলম্বে সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের সিদ্ধান্ত বাতিল করুন।’

যুগ্ম অহ্বায়ক অসীম চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন সৃজামি সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর দলপ্রধান সুজিত চক্রবর্তী, সীতাকুণ্ড উদীচীর সহসভাপতি আবুল কাশেম, বোয়ালখালী উদীচীর সাধারণ সম্পাদক মৃত্যঞ্জয় দাশ, পরিবেশবাদী সংগঠন ইকো ফ্রেন্ডস সভাপতি উত্তম আচার্য্য, সাংবাদিক আলোকময় তলাপাত্র, শিক্ষক টিঙ্কু ভৌমিক, সংস্কৃতিকর্মী জয়শ্রী মজুমদার, প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ পাল, বোধন আবৃত্তি পরিষদের বিপ্লব শীল প্রমুখ। পরে প্রতিবাদী গান ও আবৃত্তি পরিবেশন করা হয়।

উল্লেখ্য, গত বছর সিআরবি এলাকায় বর্তমান রেলওয়ে হাসপাতাল ও সংলগ্ন খালি জমি, রেলওয়ে হাসপাতাল কলোনি স্টাফ কোয়ার্টারের ছয় একর জমিতে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্বে (পিপিপি) প্রকল্পের চুক্তি সই ও অনুমোদন হয়। বেসরকারি ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজ কোম্পানি লিমিটেড নামের প্রতিষ্ঠান ছয় একর জমিতে ৫০০ শয্যার হাসপাতাল, ১০০ আসনের মেডিকেল কলেজ ও ৫০ আসনের নার্সিং ইনস্টিটিউট করবে। প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় ১২ বছর। ইতিমধ্যে রেলওয়েকে আট কোটি টাকা পরিশোধ করেছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানটি। ৫০ বছর পর হাসপাতালটি রেলওয়েকে হস্তান্তর করা হবে বলে চুক্তিতে উল্লেখ করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন