default-image

মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে পারিবারিক কলহের জেরে টিউবওয়েলের হাতল দিয়ে মাথায় আঘাত করে ছেলে বাবাকে হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত ব্যক্তির নাম খোকন মিয়া (৫৫)। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার জামির্তা ইউনিয়নের উত্তর বকচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে ছেলে কাউসার হোসেন (২২) পলাতক। দুপুরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, উত্তর বকচর গ্রামের খোকন মিয়া আগে ট্রাক চালাতেন। তবে প্যারালাইসিস হওয়ায় প্রায় এক বছর ধরে তাঁর বাঁ হাত-পা অবশ হয়ে পড়ে। এরপর থেকে তিনি বাড়িতে অধিকাংশ সময় বিছানায় শুয়ে থাকতেন। তাঁর ছোট ছেলে কাউসার ইঞ্জিনমিস্ত্রির কাজ করেন। তিনি মাদক সেবন করেন। মাদক সেবন নিয়ে বাবা-ছেলের মাঝেমধ্যেই বাগ্‌বিতণ্ডা হতো। এসব ছাড়াও পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আজ বেলা ১১টার দিকে বাবা ও ছেলের মধ্যে ঝগড়া হয়। এ ঝগড়ার একপর্যায়ে বাড়িতে পরিত্যক্ত টিউবওয়েলের (অগভীর নলকূপ) হাতল দিয়ে কাউসার তাঁর বাবার মাথায় আঘাত করেন। এ সময় খোকন মিয়া মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং ঘটনাস্থলেই মারা যান। এর পরপরই কাউসার বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।

ঝগড়ার একপর্যায়ে বাড়িতে পরিত্যক্ত টিউবওয়েলের হাতল দিয়ে কাউসার তাঁর বাবা খোকন মিয়ার মাথায় আঘাত করেন। এ সময় খোকন মিয়া মাটিতে লুটিয়ে পড়েন এবং ঘটনাস্থলেই মারা যান। এর পরপরই কাউসার বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।
বিজ্ঞাপন

খবর পেয়ে স্থানীয় শান্তিপুর তদন্তকেন্দ্র এবং সিঙ্গাইর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন লিখে পুলিশ নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

শান্তিপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিদর্শক মো. লুৎফর রহমান বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে টিউবওয়েলের হাতল দিয়ে মাথায় আঘাত করায় ওই ব্যক্তি মারা গেছেন বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। তবে অধিকতর তদন্তে হত্যার কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে। ঘটনার পর ছেলে বাড়ি থেকে পালিয়েছেন।

অভিযুক্ত কাউসার হোসেন পলাতক থাকায় তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তাঁর ব্যবহৃত মুঠোফোনটিও বন্ধ রয়েছে।

এ ব্যাপারে সিঙ্গাইর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্ত ছেলেকে আটক করতে অভিযান চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন