default-image

হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে নাশকতা ও সহিংসতার ঘটনায় করা মামলায় জামায়াত ও বিএনপির দুই নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জামায়াত নেতা আবদুল্লাহ আল বাকিকে গতকাল সোমবার রাত দেড়টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। আর মিজমিজি দক্ষিণপাড়া এলাকা থেকে ২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সহসভাপতি গোলজার হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার আবদুল্লাহ আল বাকি জামায়াতে ইসলামী নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার রোকন ও মানবসম্পদ বিভাগের দায়িত্বরত প্রকৌশলী। এর আগে তিনি জামায়াতে ইসলামীর সিদ্ধিরগঞ্জ থানা শাখার আমিরের দায়িত্ব পালন করেছেন।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, হেফাজতে ইসলামের হরতালে সহিংসতার ঘটনায় পুলিশের করা মামলায় জামায়াত নেতা আবদুল্লাহ আল বাকিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ছাড়া ওয়ার্ড বিএনপির নেতা গোলজার হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ নিয়ে হেফাজতের হরতালে নাশকতা ও সহিংসতার ঘটনায় সিটি কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনসহ ২১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গত ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালে পুলিশ-হেফাজতের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়। ওই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন দুজন। আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ১৮টি গাড়ি। ভাঙচুর করা হয়েছে দুটি গণমাধ্যমের গাড়ি, অ্যাম্বুলেন্সসহ শতাধিক যানবাহন। ওই দিন সকাল থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে শিমরাইল পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার এলাকা অচল হয়ে পড়ে। গোটা এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। ওই ঘটনার পরের রাতে পুলিশ বাদী হয়ে পাঁচটি এবং র‌্যাব বাদী হয়ে একটিসহ মোট ছয়টি মামলা করে। ওই ৬ মামলায় ১৪৩ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরও ২ হাজার ৬০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজতের নেতা–কর্মীদের আসামি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন