বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালতে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরুর আগে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও আদালতের পিপি ফরিদুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, আজ সিনহা হত্যা মামলার পঞ্চম সাক্ষীর জবানবন্দি গ্রহণ শুরু হবে। এরপর হাতে সময় থাকলে ষষ্ঠ ও সপ্তম সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ হতে পারে। কাল বুধবারও চলবে দ্বিতীয় দফায় টানা চার দিনের এই সাক্ষ্য গ্রহণ। এ জন্য নোটিশ পাঠানো হয়েছে আরও ১১ জন সাক্ষীকে। এই মামলার মোট সাক্ষী ৮৩ জন।

গতকাল সোমবার আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন মামলার ৯ নম্বর সাক্ষী কামাল হোসেন। আগের দিন রোববার সাক্ষ্য দিয়েছেন মামলার ৩ নম্বর সাক্ষী মোহাম্মদ আলী। এই দুজনের বাড়ি টেকনাফের শামলাপুর ও মীনাবাজার এলাকায়।

এর আগে প্রথম দফায় গত ২৩ থেকে ২৫ আগস্ট আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন মামলার বাদী ও সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস ও ঘটনার একমাত্র প্রত্যক্ষদর্শী ও মামলার ২ নম্বর সাক্ষী সাহেদুল ইসলাম সিফাত। তবে তাঁদের কেউ আজ আদালতে উপস্থিত নেই।

আজ সকাল সাড়ে নয়টার দিকে কঠোর নিরাপত্তায় জেলা কারাগার থেকে প্রিজনভ্যানে করে আদালত প্রাঙ্গণে আনা হয় প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলীসহ ১৫ জন আসামিকে। এরপর তাঁদের নেওয়া হয় আদালতে। এর আগে আদালতে হাজির হন মামলার তিনজন সাক্ষী।

মেজর (অব.) সিনহা খুন হওয়ার পর পুলিশ বাদী হয়ে তিনটি (টেকনাফে দুটি, রামুতে একটি) মামলা করেছিল। ঘটনার পাঁচ দিন পর, অর্থাৎ ৫ আগস্ট কক্সবাজার আদালতে হত্যা মামলা করেন সিনহার বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এতে টেকনাফ থানার বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ নয় পুলিশ সদস্যকে আসামি করা হয়। চারটি মামলারই তদন্তের দায়িত্ব পায় র‍্যাব।

২০২০ সালের ১৩ ডিসেম্বর প্রদীপ কুমার দাসসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা ও র‍্যাবের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার খাইরুল ইসলাম।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন