default-image

জামালপুর পৌর শহরের রশিদপুর এলাকায় গ্যাস সিলিন্ডার থেকে লাগা আগুনে দগ্ধ হয়ে গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। দগ্ধ হয়েছেন তাঁর স্বামী। তাঁদের পাঁচ বছর বয়সী একমাত্র মেয়ে ঘটনার একটু আগে দাদার বাড়িতে যাওয়ায় রক্ষা পায়। আজ রোববার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ওই গৃহবধূর নাম শিপ্রা বেগম (২২)। তিনি শহরের রশিদপুর এলাকার ইকরামুল হোসেনের স্ত্রী। আগুনে দগ্ধ হয়ে শিপ্রা ঘরেই মারা যান। গুরুতর দগ্ধ অবস্থায় ইকরামুলকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ইকরামুল হক রশিদপুর বাজারের একজন পেট্রল ব্যবসায়ী।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে শিপ্রা গ্যাস সিলিন্ডারে রান্না করছিলেন। পাশে স্বামী ইকরামুলও ছিলেন। হঠাৎ গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুন ঘরে থাকা পেট্রলে লেগে যায়। এতে মুহূর্তেই পুরো ঘরে আগুন ধরে যায়। তাঁরা দুজন ঘর থেকে বের হতে পারছিলেন না। পরে স্থানীয় লোকজন গিয়ে দগ্ধ অবস্থায় স্বামীকে উদ্ধার করেন। কিন্তু তাঁর স্ত্রী আগুনে পুড়ে মারা যান।

বিজ্ঞাপন

ঘটনাস্থলে দেরিতে যাওয়ার অভিযোগে বিক্ষুব্ধ স্থানীয় লোকজন ফায়ার সার্ভিসের একটি গাড়ি ভাঙচুর ও কর্মীদের মারধর করে। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

এই অভিযোগের বিষয়ে জামালপুর ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আবদুর রাজ্জাক প্রথম আলোকে বলেন, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কয়েকটি গাড়িসহ কর্মীরা ঘটনাস্থলে যান। তবে শহরে ব্যাপক যানজট ছিল। যানজটের কারণে ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে একটু দেরি হয়। এতে স্থানীয় লোকজন একটি গাড়ি ভাঙচুর করে এবং ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের মারধর করে।

জামালপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সীমা রানী সরকার বলেন, গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুন ঘরে থাকা পেট্রলের দিকে ছড়িয়ে পড়লে পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে যায়। স্থানীয় লোকজন উদ্ধারের আগেই ওই গৃহবধূ মারা যান। তাঁর স্বামীকে গুরুতর দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এই দম্পতির পাঁচ বছর বয়সী একটি মেয়ে আছে। দুর্ঘটনার ২০ মিনিট আগে সে তার দাদাবাড়িতে যাওয়ায় রক্ষা পায়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন