default-image

সিলেটের কুমারগাঁও বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে আবারও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তবে এতে বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। গতকাল রোববার রাত পৌনে আটটার দিকে অগ্নিকাণ্ডের কারণে সিলেটের পাঁচটি বিক্রয় ও বিতরণ অঞ্চলের মধ্যে একটি কেন্দ্রের এলাকার প্রায় তিন ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল।

এর আগে গত বছরের ১৭ নভেম্বর দুপুরে বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছিল। সে সময় সিলেট নগরসহ আশপাশের এলাকায় টানা ৩১ ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে হঠাৎ সিলেটে ঝোড়ো হাওয়া বইতে শুরু করে। সে সময় বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রের পল্লী বিদ্যুতের গোলাপগঞ্জ ফিডারের বিতরণ বিভাগের একটি ফিউজ মিটার থেকে শর্টসার্কিটের মতো ঘটনা ঘটে। এ সময় এর নিচে থাকা ফিউজ মিটারে পাশে লাগানোর ইনস্যুলেটর রাখার কাঠের বাক্সে আগুনের ফুলকি পড়ে। এতে কাঠের বাক্সে আগুন লেগে যায়। এ সময় সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ সাময়িক বন্ধ করা হয়। বিদ্যুৎ উপকেন্দ্রে থাকা কর্মীরা আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন ও সিলেট ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষকে খবর দেন। পরে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে রাত সাড়ে আটটার দিকে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়।

বিজ্ঞাপন

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় সিলেট বিদ্যুৎ সরবরাহ সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর আবার সরবরাহ চালু করা হয়। কিন্তু বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সিলেট বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২–এর আওতাধীন এলাকায় কিছুটা গোলযোগ থাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়। পরে রাত ১০টার দিকে ওই এলাকাগুলোতে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হয়।

সিলেট বিদ্যুৎ উন্নয় বোর্ডের (বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ) প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ আবদুল কাদির বলেন, অগ্নিকাণ্ড ঘটলেও সেটি দ্রুত নেভানো হয়েছে। যাতে বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষা পাওয়া গেছে। তবে অগ্নিকাণ্ডে কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, সেটি এখনো নিরূপণ করা হয়নি। তিনি বলেন, কিছু কাঠের বাক্স পুড়েছে। তেমন কিছু ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন