default-image

সিলেটের সিএনজিচালিত অটোরিকশাগুলোতে বাধ্যতামূলক গ্রিল লাগানোর নির্দেশ দিয়েছে মহানগর পুলিশ। ৬ নভেম্বর পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করে বিষয়টি জানানো হয়। তবে এ নির্দেশের প্রতিবাদে মঙ্গলবার  সিলেট জেলা সিএনজিচালিত অটোরিকশা, অটোটেম্পো, ট্যাক্সি, ট্যাক্সিকার মালিক সমিতি নগরে শোভাযাত্রা ও সভা করে। বুধবার থেকে নম্বরবিহীন অটোরিকশার বিরুদ্ধে অভিযানে নামছে পুলিশ।
মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে নগরের দক্ষিণ সুরমা থেকে কাজীর বাজার ব্রিজ হয়ে কয়েক শ সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ে প্রতিবাদী শোভাযাত্রা নিয়ে মালিক ও শ্রমিকেরা সিলেটের জেলা প্রশাসক ও মহানগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে স্মারকলিপি দেন।

বিজ্ঞাপন

সিলেট জেলা সিএনজিচালিত অটোরিকশা, অটোটেম্পো, ট্যাক্সি, ট্যাক্সিকার মালিক সমিতির সভাপতি শাহ মো. দিলওয়ার প্রথম আলোকে বলেন, ‘শুধু আমাদের ওপরই প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন আইন দেখিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। তবে সিলেটে কেউই কোনো আইন মানছেন না। আমরা আইনকে শ্রদ্ধা করি। তবে অন্যায়ভাবে চাপিয়ে দিলে তা মেনে নেওয়া হবে না।’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘সিলেটে অবৈধ “পুলিশ টোকেন”–এর মাধ্যমে নম্বরবিহীন সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চলাচল করছে। সেগুলোর বিরুদ্ধে প্রশাসন পদক্ষেপ না নিয়ে শুধু আমাদের ওপর অন্যায়ভাবে নির্দেশ চাপিয়ে দিচ্ছে।’

সিলেট জেলা সিএনজিচালিত অটোরিকশা, অটোটেম্পো, ট্যাক্সি  টেক্সিকার মালিক সমিতির সভাপতি শাহ মো. দিলওয়ার আরও বলেন, ‘আমরা গ্রিল লাগাব। কিন্তু সিলেটে চলাচল করছে এমন নম্বরবিহীন সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ও জেলার বাইরে থেকে বিভিন্নভাবে অবৈধভাবে আসা সিএনজিচালিত অটোরিকশাগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।’

এ বিষয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (ট্রাফিক) ফয়সল মাহমুদ প্রথম আলোকে বলেন, মঙ্গলবারের মধ্যে সিএনজিচালিত অটোরিকশাগুলোতে বাধ্যতামূলকভাবে গ্রিল লাগানোর নির্দেশনা ছিল। তবে মালিক সমিতির অনুরোধে আপাতত আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত ওই নির্দেশনা শিথিল করা হয়েছে। আগামী বছরের প্রথম থেকে গ্রিল ছাড়া সিএনজিচালিত অটোরিকশা পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, বুধবার থেকে সিলেটের আটটি মোড়ে একযোগে নম্বরবিহীন সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য অভিযান চালানো হবে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য পড়ুন 0