বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ দুপুরে বিক্ষোভ কর্মসূচিতে সিলেট জেলা জাসদ সভাপতি লোকমান আহমদের সভাপতিত্বে সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এমাদ উল্ল্যাহ শহিদুল ইসলাম, সাম্যবাদী আন্দোলনের সমন্বয়ক সুশান্ত সিনহা, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আবদুল করিম চৌধুরী, ওঁরাও সম্প্রদায়ের পক্ষে শিপা ওঁরাও প্রমুখ বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সিলেট ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সিকান্দর আলী।

বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বক্তারা বলেন, সিলেটের বালুচর এলাকার চন্দনটুলায় ওঁরাও জাতিগোষ্ঠীর পৈতৃক জায়গা। ওই জায়গা থেকে তাঁদের উচ্ছেদ করতে ভূমিখেকো চক্র এক যুগের বেশি সময় ধরে চেষ্টা চালিয়ে আসছে। এসব ঘটনায় একাধিক মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এসব মামলায় ভূমিখেকো চক্রটি যখন সুবিধা করতে পারছে না, তখন তারা হুমকি-ধমকি ও হামলা চালিয়ে ওঁরাও জাতিগোষ্ঠীকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছে। বর্তমানে ওই জায়গায় মাত্র ১১টি পরিবার টিকে আছে। চক্রটি বিভিন্নভাবে প্রভাব বিস্তার করে ওঁরাও জাতিগোষ্ঠীর প্রায় ৯০ ভাগ জায়গা দখল করে নিয়েছে। এরপরও তাঁরা ক্ষান্ত হয়নি। দিনের পর দিন পরিবেশ ধ্বংস করে উচ্ছেদের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ভূমিখেকো চক্র বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে প্রশাসনের চোখে কালো চশমা পরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ করেন বক্তারা।

বক্তারা আরও বলেন, কয়েক দিন ধরে চন্দনটিলা কেটে সাবাড়ের চেষ্টা করা হয়েছে। এর প্রতিবাদ ও বাধা দিতে গেলে ওঁরাও সম্প্রদায়ের ওপর গতকাল হামলার ঘটনা ঘটেছে। প্রতিবাদকারীদের মারধর করে ফেলে রাখা হয়েছিল। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের দ্রুত বিচারের দাবি জানান বক্তারা।
এদিকে গতকাল ওঁরাও জাতিগোষ্ঠীর ওপর হামলার ঘটনায় আজ বিকেলে সিলেটের শাহপরান থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মিলন ওরাং। তিনি বলেন, বিকেলে লিখিত অভিযোগটি থানায় জমা দেওয়া হয়েছে।

শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আনিসুর রহমান বলেন, মিলন ওঁরাং নামের এক ব্যক্তি থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অন্যদিকে গত শুক্রবার রাতে আরেক নারী তাঁদের ওপর হামলার অভিযোগ এনে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। দুটি অভিযোগই তদন্ত করা হবে। তদন্তের পর সত্যতা পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন