বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

খবর পেয়ে সিলেট ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা রাত পৌনে দুইটার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভানোর কাজ শুরু করেন। খবর পেয়ে ব্যবসায়ীরা আতঙ্কিত হয়ে বিপণিবিতানের নিচে জড়ো হতে থাকেন। তাঁদের অনেকে নিজেদের মালামাল সরিয়ে নেন। রাত আড়াইটার দিকে সিলেট ফায়ার সার্ভিস স্টেশনসহ ৩টি স্টেশনের ১০টি ইউনিটের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

সিলেট ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম ভূঞা বলেন, ভবনের আন্ডারগ্রাউন্ডের বৈদ্যুতিক তার থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়, পরে তা ভবনের ছাদ পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ভবনের ভেতরে প্রবেশ করলেও ধোঁয়ার কারণে বেশি সময় অবস্থান করতে পারছিলেন না।

শফিকুল ইসলাম ভূঞা বলেন, ভবনের অগ্নিনির্বাপণের জন্য লাগানো পানির পাইপগুলোতে পানি সরবরাহ হয় না। আগুন নেভানোর জন্য স্প্রেগুলোও অকার্যকর ছিল। বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা ছিল। তবে দ্রুত সময়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে, ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি তদন্তাধীন। বিপণিবিতানের অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা কার্যকর না হওয়া পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখতে বিদ্যুতের কর্মকর্তাদের বলা হয়েছে বলে তিনি জানান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন