বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে সিলেট কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম আবু ফরহাদ প্রথম আলোকে বলেন, রাতে মামলা নথিভুক্ত করার পর আজ বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজের মর্গে নিহত ওয়েন্টাওর মরদেহের ময়নাতদন্ত হয়েছে। নিহত ব্যক্তির স্ত্রী চীনা দূতাবাসের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী স্বামীর লাশ নিজ দেশে নিয়ে যাবেন।

পুলিশ সূত্র জানায়, সিলেট নগরীর পশ্চিম পাঠানটুলা এলাকার বি ব্লকের ১১/৯ নম্বর বাসার পঞ্চম তলার একটি ফ্ল্যাটে ভাড়া থাকতেন কুমারগাঁওয়ে বিদ্যুৎ প্ল্যান্টে কর্মরত ১২ জন চীনা নাগরিক। গত মঙ্গলবার সকালে টেবিলে নাশতা করার সময় তাঁদের মধ্যে ওয়েন্টাও ওয়েই ও জো চাও ছুরি হাতে নিয়ে মারামারিতে লিপ্ত হন। ওয়েন্টাও ওয়েই ছুরি দিয়ে জো চাওর গলার পেছন ও ডান পায়ের ঊরুতে আঘাত করেন। একপর্যায়ে জো চাও ছুরি কেড়ে নিয়ে ওয়েন্টাওর বুকের বাঁ পাশে আঘাত করলে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে নিহত ওয়েন্টাওর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে জো চাওকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে পুলিশ পাহারায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন