বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ দুপুরে শ্রীপুর আলুবাগান এলাকার যাত্রীছাউনির পাশে নীলুফা বেগম রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক নীলুফাকে ধাক্কা দিলে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে সেখান থেকে তাঁকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

তবে এ সময় স্থানীয়ভাবে খবর ছড়িয়ে পড়ে নীলুফা বেগম মারা গেছেন। এরপর বেলা দুইটার দিক থেকে সিলেট-তামাবিল আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন স্থানীয় লোকজন। এ সময় সড়কের দুই পাশে দীর্ঘ যানজট তৈরি হয়। পরে তামাবিল হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করলে বিকেল পাঁচটার দিকে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এ ব্যাপারে তামাবিল হাইওয়ে ফাঁড়ির পরিদর্শক মাহবুবুর রহমান বলেন, দুর্ঘটনার খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। দুর্ঘটনায় আহত ওই নারী জীবিত আছেন এবং তিনি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন—এ তথ্য জানানো হলে স্থানীয় লোকজন অবরোধ তুলে নেন। এখন ওই সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।

সিলেটের গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিমল দেব বলেন, পথচারীকে চাপা দেওয়া ট্রাকটি জৈন্তাপুর পার হয়ে জাফলংয়ের দিকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিল। ওই সময় গোয়াইনঘাট থানা-পুলিশ ট্রাকটি আটক করেছে। তবে ট্রাকচালক পালিয়ে গেছেন। আটক ট্রাকটি তামাবিল হাইওয়ে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন