বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই দুই বোন হলেন সিলেট নগরের মজুমদারি এলাকার মৃত কলিম উল্লা ও জাহানারা বেগম দম্পতির মেয়ে শেখ রাণী বেগম (৩৮) ও শেখ ফাতেমা বেগম (২৭)। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে পুলিশ খবর পেয়ে নগরের মজুমদারি এলাকার ৩১ নম্বর বাসার ছাদ থেকে একই পিলারের দুটি আলাদা রডে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই দুজনের লাশ উদ্ধার করে। ওই দিন বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়। পরে রাত আটটার দিকে সিলেট নগরের মানিক পীর টিলায় জানাজা শেষে লাশ দুটির দাফন সম্পন্ন হয়।

মঙ্গলবার সকালে পুলিশ খবর পেয়ে নগরের মজুমদারি এলাকার ৩১ নম্বর বাসার ছাদ থেকে একই পিলারের দুটি আলাদা রডে ঝুলন্ত অবস্থায় ওই দুজনের লাশ উদ্ধার করে।

এই ঘটনায় সিলেট সিটি করপোরেশনের ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজাউল হাসান লোদী জানান, ওই পরিবারের সদস্যরা স্থানীয় বাসিন্দা হলেও সামাজিক তেমন কোনো কর্মকাণ্ডে অংশ নিতেন না। তাঁরা অনেকটা ‘আইসোলেটেড’ (সমাজবিচ্ছিন্ন) জীবন যাপন করতেন। দুই বোনের মৃত্যুর ঘটনা রহস্যজনক এবং পরিবারের সদস্যরাও একেক সময় একেক কথা বলছেন। তাঁদের বক্তব্য পরস্পরবিরোধী। ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেন তিনি।

ওই দুই বোনের বড় ভাই শেখ রাজন (৩৯) আজ প্রথম আলোকে বলেন, ‘আজ দুপুরে আমি ও আমার মা থানায় গিয়ে পুলিশের সঙ্গে দেখা করে ঘটনার বিবরণ লিখিতভাবে জানিয়েছি। পরে পুলিশ সেটি মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করেছে।’

বিমানবন্দর থানার ওসি খান মুহাম্মদ মইনুল জাকির বলেন, ‘আমাদের তদন্ত কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর আরও অনেক প্রশ্নের সমাধান হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন