বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আলী আকবর বলেন, এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) সিলেটের সহকারী পরিচালক মো. সানাউল হক ও রেকর্ড রুমের কর্মচারী দেলোয়ার হোসেনকে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে কর্মবিরতি ঘোষণা করা হয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে আজ দুপুর ১২টা থেকে বেলা সোয়া ৩টা পর্যন্ত বিআরটিএ সিলেট বিভাগের উপপরিচালক মুহা. শহীদুল্লাহ কায়ছারের সঙ্গে পরিবহনশ্রমিক নেতাদের বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে তিনি সব সমস্যার সমধানের আশ্বাস দেন। এ জন্য ১৫ দিন সময় চেয়েছেন তিনি। বিআরটিএ বিভাগীয় কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার ওই আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এর আগে পরিবহন শ্রমিকেরা অভিযোগ করে বলেছিলেন, চালকদের লাইসেন্স নবায়নসহ বিভিন্ন কাজে বিআরটিএ কার্যালয়ে গেলে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উৎকোচ দাবি করেন। গত বুধবার দুপুরে সিলেট বিআরটিএ কার্যালয়ে অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদ জানাতে গেলে বিআরটিএ কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. সানাউল হক ও রেকর্ডকিপার দেলোয়ার সিলেট জেলা বাস মিনিবাস কোচ মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ময়নুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল মুহিমের সঙ্গে অসদাচরণ করেন। এর প্রতিবাদে রোববার থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির ডাক দেওয়া হয়েছিল।

তবে বিআরটিএ কর্মকর্তা মো. সানাউল হক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করে ওই দিন প্রথম আলোকে বলেছিলেন, পরিবহনশ্রমিক নেতারা ভুল ও অসত্য কথা বলছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন