সরেজমিনে দেখা গেছে, নগরের মোড়গুলোতে তল্লাশিচৌকি বসিয়ে পথচারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করছেন পুলিশ সদস্যরা। সে সঙ্গে সড়কে চলাচল করা যানবাহন আটক করে কাগজপত্র যাচাই-বাছাই ও গন্তব্য জানতে চাচ্ছেন পুলিশ সদস্যরা। সদুত্তর পেলে তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে, অন্যথায় তাঁদের চেকপোস্ট থেকে ফিরিয়ে দিতে দেখা যায়।

এদিকে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সিলেট জেলা প্রশাসনের কার্যালয়ের সামনে থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের বহনকারী গাড়ি সাইরেন বাজিয়ে টিলাগড়ের দিকে যেতে দেখা যায়।

default-image

সিলেট নগরের জিন্দাবাজার এলাকায় রিকশায় করে শাহজালাল উপশহরের দিকে যাচ্ছিলেন কামরুজ্জামান। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করি। প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে অফিসে আসতে বলেছে। সে জন্যই যাচ্ছি। সঙ্গে অফিসের পরিচয়পত্র আছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিবন্ধকতার মুখে পড়লে বিষয়টি বুঝিয়ে বলব।’

সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. নিশারুল আরিফ বলেন, বিনা কারণে কেউ ঘর থেকে বের হলে এবং বিধিনিষেধ ভঙ্গ করলে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়ার সময় রিকশা ব্যবহার করা গেলেও কোনো ইঞ্জিনচালিত যানবাহন ব্যবহার করা যাবে না। তা করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন