বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, সিলেট বিভাগে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি ছিল গত জুনের শেষ দিক থেকে। সে সময় থেকে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় ৩০ শতাংশের ওপরে শনাক্ত করা হতো। সম্প্রতি করোনা সংক্রমণের হার কিছুটা নিম্নমুখী। ১০ সেপ্টেম্বর জুনের পর সর্বনিম্ন ৬ দশমিক ৩৮ শতাংশ রেকর্ড করা হয়েছিল। গত বুধবার নমুনা পরীক্ষায় সেটি ৪ দশমিকে নেমে গিয়েছিল।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে নতুন শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সিলেট জেলায় রয়েছেন ১৯ জন, হবিগঞ্জে ৫ জন ও মৌলভীবাজার জেলায় ১৪ জন। এ নিয়ে বিভাগে করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৪ হাজার ১৭০। এর মধ্যে সিলেট জেলার বাসিন্দা রয়েছেন ৩৩ হাজার ৩৪৫ জন, সুনামগঞ্জের ৬ হাজার ২১৭ জন, হবিগঞ্জের ৬ হাজার ৫৯৬ জন ও মৌলভীবাজারের ৮ হাজার ১২ জন।

শেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে বিভাগে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। বিভাগে মারা গেছেন ১ হাজার ১৪০ জন। এর মধ্যে সিলেটের ৯৪৯ জন, সুনামগঞ্জের ৭২ জন, হবিগঞ্জের ৪৭ জন ও মৌলভীবাজারের ৭২ জন বাসিন্দা মারা গেছেন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে নতুন করে ১৮৬ জন সুস্থ হয়েছেন। এ নিয়ে বিভাগে করোনা থেকে সুস্থ হওয়া ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৭ হাজার ৩৩৭।

সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক হিমাংশু লাল রায় বলেন, সিলেট বিভাগে করোনায় আক্রান্তের হার নিম্নমুখী। সেই সঙ্গে আইসোলেশন সেন্টারগুলোতেও কমেছে রোগীর চাপ। বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ১০৩। এর মধ্যে ৮৫ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন সিলেট জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে। এ ছাড়া সুনামগঞ্জের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন নয়জন, হবিগঞ্জে পাঁচজন ও মৌলভীবাজারে চারজন।

হিমাংশু লাল রায় করোনা সংক্রমণ রোধে সবাইকে সচেতন থাকার এবং স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহ্বান জানান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন