বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত ১৬ অক্টোবর সিলেট-৩ (দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ) আসনের সাংসদ হাবিবুর রহমান জাতীয় সংসদে দেওয়া বক্তৃতায় সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় নামকরণের প্রস্তাব করেন। এরপর পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট-১ (সিলেট সদর ও মহানগর) আসনের সাংসদ এ কে আবদুল মোমেন নতুন নামকরণে সমর্থন জানিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে একটি আধা সরকারি পত্র (ডিও) দেন।

১৬ অক্টোবর সিলেট-৩ আসনের সাংসদ হাবিবুর রহমান জাতীয় সংসদে দেওয়া বক্তৃতায় সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় নামকরণের প্রস্তাব করেন।

গত ২৫ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় সিন্ডিকেট সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নেন সিন্ডিকেট সদস্যরা। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী ২৮ অক্টোবর সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বিষয়টি লিখিতভাবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের জানান। এরপর ১৮ নভেম্বর মন্ত্রণালয় থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নামকরণের বিষয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের অনুমোদন গ্রহণের নির্দেশনা দেয়। এ অবস্থায় ২৮ নভেম্বর ট্রাস্ট বরাবর অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন উপাচার্য।

উপাচার্য মোর্শেদ আহমদ চৌধুরীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ বেলা চারটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নামকরণে ট্রাস্টের পক্ষ থেকে অনুমতি দেওয়া হয়। এ বিষয়ে সিলেট-৩ আসনের সাংসদ হাবিবুর রহমান আজ সন্ধ্যায় প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম বদলে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের নামে হচ্ছে। আমি খুবই আনন্দ বোধ করছি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নামকরণের ব্যাপারে অনুমতি দিয়েছেন। আমরা তাঁকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এ ছাড়া মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন নতুন নামকরণের জন্য ডিও লেটার দেওয়ায় এবং মাননীয় সাংসদ হাবিবুর রহমান নতুন নামকরণের প্রস্তাব উত্থাপন করায় তাঁদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

২০১৮ সালের ১ অক্টোবর সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। ওই বছরের ২০ নভেম্বর প্রথম উপাচার্য নিযুক্ত করার মাধ্যমে নগরের চৌহাট্টা এলাকার অস্থায়ী ক্যাম্পাসে প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণে নগরের উপকণ্ঠে দক্ষিণ সুরমা এলাকায় ৮০ একর ভূমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন