বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় ইউপি সদস্য প্রার্থী এ টি এম মুরাদ ও গ্রেপ্তার তিনজনকে আসামি করে সীতাকুণ্ড থানায় অস্ত্র আইনে মামলা করেছেন র‌্যাবের উপসহকারী পরিচালক (ডিএডি) মো. মনিরুজ্জামান।

সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক প্রথম আলোকে বলেন, র‌্যাব গ্রেপ্তার তিনজনকে আজ দুপুরে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। গ্রেপ্তার তিনজন ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী মুরাদের অনুসারী। একটি হত্যা মামলার আসামি আবু ইউসুফের ঘরে লুকিয়ে আছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব সেখানে অভিযান চালিয়ে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। পরে র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা জানিয়েছেন, নির্বাচনের দিন মুরাদের পক্ষে নাশকতা চালানোর জন্য তাঁরা অস্ত্রসহ জড়ো হয়েছিলেন।

সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ পরিদর্শক সুমন বণিক আরও বলেন, অভিযানের সময় কৌশলে ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী মুরাদ পালিয়ে যান। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে সাইফুল ইসলাম ও দিদারুল আলম হত্যা মামলার আসামি। আদালতের মাধ্যমে তাঁদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য পদপ্রার্থী এ টি এম মুরাদ জানান, তাঁর বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। তিনি ২০১৭ সাল থেকে মাদক নির্মূলে কাজ করে যাচ্ছেন। ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় মাদক ব্যবসায়ীরা তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। তাঁর যে কর্মী-সমর্থকদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাঁরা রাজনৈতিক মামলার আসামি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন