বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাদ্দামের বড় ভাই মো. মহসিন প্রথম আলোকে বলেন, দুই দিন আগে তাঁর ভাইয়ের জ্বর ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ব্যথা শুরু হয়। সেই সঙ্গে পেট ফুলে যেতে থাকে। প্রথমে তাঁকে উপজেলার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে চট্টগ্রামের পার্কভিউ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে তাঁকে আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে পরীক্ষা–নিরীক্ষার পর তাঁর ডেঙ্গু ধরা পড়ে। আজ সকাল আটটায় তাঁর মৃত্যু হয়। সাদ্দামের চার বছর বয়সী ছেলে ও এক বছর বয়সী কন্যাসন্তান আছে।

বিআইটিআইডি হাসপাতালের উপপরিচালক মোহাম্মদ বখতিয়ার আলম প্রথম আলোকে বলেন, গতকালও ১৫ জন ডেঙ্গু রোগী ডেঙ্গু কর্নারে ভর্তি ছিলেন। চলতি বছরে তাঁদের হাসপাতাল থেকে ১৮১ জন ডেঙ্গু রোগীর চিকিৎসা নিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন