বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ওই নারীর লাশ ভাড়া বাসার খাটের ওপর শোয়ানো অবস্থায় ছিল। লাশের গায়ে কম্বল ও গলায় ওড়না পেঁচানো ছিল।

লাকির ভাই মুজিবুল হক প্রথম আলোকে বলেন, লাকির স্বামী মান্নান তাঁর প্রথম স্ত্রীকে রাখেন মুরাদপুরের বাড়িতে আর লাকিকে রাখেন পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের একটি ভাড়া বাসায়। তাঁদের বাড়ি মিরসরাই উপজেলায়। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর বোন লাকির মৃত্যুর খবর পেয়ে ছুটে আসেন সীতাকুণ্ডে। মান্নানই তাঁর বোনকে খুন করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।

মুজিবুল হক আরও বলেন, মান্নান সৌদি আরব থেকে তিন-চার দিন আগে দেশে ফিরে কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। গতকাল সন্ধ্যায় তিনি লাকির বাসায় যান। বিষয়টি লাকি তাঁর আরেক বোনকে মুঠোফোনে জানিয়ে ছিলেন।

সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ প্রথম আলোকে বলেন, পাশের বাসার বাসিন্দারা লাকির ঘরের দরজা খোলা দেখতে পান। সেখানে দেখেন লাকির লাশ খাটের ওপর পড়ে আছে। পরে প্রতিবেশীরা লাকির পরিবার ও পুলিশকে খবর দেয়। এর আগে গতকাল সন্ধ্যায় লাকির সঙ্গে এক ব্যক্তিকে ওই বাসায় ঢুকতে দেখেন প্রতিবেশীরা। কিন্তু মান্নানকে প্রতিবেশীরা আগে দেখেননি। ফলে লাকির সঙ্গে ঘরে প্রবেশ করা ব্যক্তি মান্নান কি না, তা নিশ্চিত নন। এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন