default-image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা সীমান্তের শূন্যরেখায় ১২ জন নারী-পুরুষ ৩ দিন ধরে অবস্থান করছেন। তাঁদের বাংলাদেশে পুশ ইনের চেষ্টা করছে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। বাংলাদেশ বর্ডার গার্ডের (বিজিবি) বাধার মুখে বিএসএফ তাঁদের বাংলাদেশে পুশ ইন করতে পারছে না।
ওই ১২ জনকে ভারতীয় নাগরিক উল্লেখ করে বিজিবির পক্ষ থেকে সীমান্ত এলাকায় নজরদারি জোরদার করা হয়েছে।

জানা গেছে, এ ঘটনায় গত শনিবার সন্ধ্যায় দুই দেশের কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্বে ছিলেন বিজিবির কসবার কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার করিম উদ্দিন প্রধান এবং ভারতের বিএসএফের পক্ষ কমলাসাগর বিএসএফ ক্যাম্পের পরিদর্শক প্রবেশ কুমার।
বিজিবি ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কসবা পৌর শহরের হাকর এলাকার ভারত সীমান্তের ২০৩৯/১২ এস পিলার এলাকা দিয়ে গত শনিবার সন্ধ্যায় ভারতীয় ১২ জন নারী-পুরুষকে কাঁটাতারের বেড়া পার হয়ে বাংলাদেশে পুশ ইন করার চেষ্টা করেছে বিএসএফ। এ সময় টহলরত বিজিবি বাধা দেয়। ওই দিন থেকে আজ সোমবার বিকেলে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৩ দিন ধরে ১২ জন ভারতীয় নাগরিক সীমান্তের শূন্যরেখায় ভারতীয় এলাকায় অবস্থান করছেন।
বিজিবির ৬০ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল এস এম মেহেদী হাসান আজ বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, ভারতীয় ১২ জন নারী-পুরুষকে বাংলাদেশে পুশ ইনের চেষ্টা করেছে বিএসএফ। বিজিবির পক্ষ থেকে কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক করে বাধা দেওয়া হয়েছে। ওই ১২ জন ৩ দিন ধরে সীমান্তের শূন্যরেখার ভারতীয় এলাকায় অবস্থান করছেন। বাংলাদেশে যেন তাঁদের পুশ ইন করাতে না পারে, এ জন্য সীমান্তের পুরো এলাকায় রণপাহারা জোরদার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন