বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এনামুল কবির প্রথম আলোকে বলেন, দলের আরও কয়েকজনের বিষয়ে এ রকম সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে যাঁরা দলের পদে নেই বা অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনে থেকে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন, ভবিষ্যতে তাঁরা যেন দলীয় কোনো পদ না পান সেটিও খেয়াল রাখা হবে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সুনামগঞ্জ সদর ও শান্তিগঞ্জ উপজেলার ১৭টি ইউপিতে আওয়ামী লীগের অন্তত ২৩ জন বিদ্রোহী প্রার্থী আছেন। এর মধ্যে অনেকেই দলের পদে নেই। আবার কেউ কেউ দলের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনে আছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন