সুনামগঞ্জে কোভিডে আক্রান্তের সংখ্যা ৪০০ ছাড়াল

বিজ্ঞাপন
default-image

সুনামগঞ্জে আরও ২৩ জনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় কোভিড-১৯–এ আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪১৯। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১০১ জন। মারা গেছেন তিনজন। সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন মোহাম্মদ শামস উদ্দিন আজ শুক্রবার সকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পিসিআর ল্যাবে সুনামগঞ্জ থেকে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। এসব নমুনা পরীক্ষার পর গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ২৩ জনের করোনা পজিটিভ বলে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে জানানো হয়। নতুন করে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় একজন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ চারজন, ছাতক উপজেলা পাঁচজন, দোয়ারাবাজার উপজেলায় পাঁচজন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় চারজন, দিরাই উপজেলায় তিনজন এবং জগন্নাথপুর উপজেলায় দুজন রয়েছেন।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের দেওয়া তথ্যমতে, সুনামগঞ্জে আক্রান্ত ৪১৯ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় ১০৮ জন, ছাতক উপজেলায় ১১৮ জন, দোয়ারাবাজারে ৪১ জন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ৩০ জন, তাহিরপুরে ১৭ জন, বিশ্বম্ভরপুরে ১৬ জন, জগন্নাথপুরে ৩০ জন, জামালগঞ্জে ১৯ জন, দিরাইয়ে ১১ জন, শাল্লায় ১১ জন এবং ধরমপাশা উপজেলায় ১৮ জন আছেন।

গত ১২ এপ্রিল দোয়ারাবাজার উপজেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২৪ মে পর্যন্ত ৪২ দিনে আক্রান্ত হন ৮২ জন। ঈদের পর ১৮ দিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩৭ জন।

প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, ঈদের পরে লকডাউন শিথিল হওয়ায় সর্বত্র মানুষের চলাচল বেড়েছে। এ কারণে সংক্রমণও বেড়েছে। কিছু কিছু মানুষ আছে, কোনো কারণ ছাড়াই হাটবাজারে ঘুরে বেড়ায়। এটা এখন বড় সমস্যা।

সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুল আহাদ বলেছেন, মানুষ যাতে স্বাস্থ্যবিধি মানে, সে জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানাভাবে কাজ করা হচ্ছে। প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। জেলা, উপজেলা শহর ছাড়াও গ্রামের হাটবাজারে প্রতিদিন অভিযান হচ্ছে। সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। ঘর থেকে বের হলেই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। অযথা ঘোরাঘুরি করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন