default-image

করোনাকালে সংকটে পড়া সুনামগঞ্জের হোটেল, রেস্টুরেন্ট ও বেকারিশ্রমিকেরা সরকারি প্রণোদনা প্রদানসহ ছয় দফা দাবিতে স্মারকলিপি দিয়েছেন। সংগঠনের পক্ষ থেকে আজ সোমবার জেলা প্রশাসকের কাছে এই স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, করোনার কারণে শ্রমিকেরা এক বছর ধরে মারাত্মক সংকটে আছেন। অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। আবার অনেকেই চাকরি হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। এখন আবার লকডাউন শুরু হয়েছে। শুরু হচ্ছে পবিত্র রমজান মাস। এ কারণে অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। সব মিলিয়ে শ্রমিকেরা পরিবার-পরিজন নিয়ে এখন অসহায়।

এ অবস্থায় স্মারকলিপিতে দাবি জানানো হয়, লকডাউন, সাধারণ ছুটি বা যেকোনো কারণে প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শ্রমিকদের পূর্ণ মজুরিসহ প্রাপ্ত সুযোগ-সুবিধা প্রদান অব্যাহত রাখতে হবে। দুর্যোগের এ সময় প্রতিষ্ঠানের কোনো লে-অফ, অব্যাহতি বা ছাঁটাই করা যাবে না। এ বিষয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে সুনির্দিষ্ট পরিপত্র জারি করতে হবে। যেসব শ্রমিক ইতিমধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদের যথাযথ চিকিৎসার দায়িত্ব সরকার ও প্রতিষ্ঠানের মালিককে বহন করতে হবে। হোটেলশ্রমিকদের জন্য পর্যাপ্ত রেশনিং ব্যবস্থা চালু করতে হবে। কর্মরত শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত, ঝুঁকি ভাতা প্রদান এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে এক জীবন আয়ের সমপরিমাণ ক্ষতিপূরণ প্রদান করতে হবে। সরকার কর্তৃক প্রণোদনা হিসেবে মাসিক ন্যূনতম ১০ হাজার টাকা সরাসরি শ্রমিকদের দিতে হবে।

সংগঠনের জেলা শাখার সভাপতি লিলু মিয়া বলেন, ‘আমরা এখন চরম অসহায় অবস্থায় আছি। সরকারিভাবে সহায়তা না পেলে পরিবার-পরিজন নিয়ে পথে নামতে হবে। এ অবস্থায় আমরা সরকারের কাছে কিছু দাবি জানিয়েছি। আশা করি, আমাদের দাবিগুলো সরকার বিবেচনা করবে।’

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন