default-image

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় হেফাজতে ইসলামের নেতা মাওলানা মামুনুল হকের রোববার যে ওয়াজ মাহফিলে থাকার কথা ছিল, সেটি স্থগিত করা হয়েছে। ওয়াজ মাহফিলের আয়োজক জামালগঞ্জের খাদিমুল কোরআন মহিলা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা কাওসার আহমদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় গত সোমবার হেফাজতে ইসলাম আয়োজিত এক সমাবেশে বক্তব্য দিতে যান মাওলানা মামুনুল হক। এরপর তাঁকে নিয়ে ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট দেওয়ার অভিযোগ তোলা হয় পাশের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। এর জেরে বুধবার সকালে আশপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষ নোয়াগাঁও গ্রামের সংখ্যালঘুদের বাড়িঘরে হামলা চালান।

হামলার ঘটনা নিয়ে যখন তোলপাড় চলছে, তখন আবার মাওলানা মামুনুল হক সুনামগঞ্জে আসবেন, এমন খবরে বিভিন্ন মহলে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়। জামালগঞ্জের খাদিমুল কোরআন মহিলা মাদ্রাসায় রোববার ‘খতমে বোখারি’ উপলক্ষে দোয়া মাহফিলে তাঁর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল। এ জন্য উপজেলা সদরের হেলিপ্যাড মাঠে মঞ্চ ও প্যান্ডেল তৈরি করা হয়। কিন্তু এই আয়োজনের জন্য প্রশাসন থেকে কোনো অনুমতি নেওয়া হয়নি বলে জানায় প্রশাসন।

শাল্লার নোয়াগাঁওয়ের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জেলার ইমাম, ওলামা ও ধর্মীয় নেতাদের নিয়ে সুনামগঞ্জে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে আজ শনিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সভা হয়। সভায় জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর আলম শাল্লায় ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আবার সুনামগঞ্জে মাওলানা মামুনুল হককে অতিথি করে অনুষ্ঠান আয়োজন করা ঠিক হবে না জানান।
বিজ্ঞাপন

শাল্লার নোয়াগাঁওয়ের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জেলার ইমাম, ওলামা ও ধর্মীয় নেতাদের নিয়ে সুনামগঞ্জে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে আজ শনিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সভা হয়। সভায় জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, শাল্লায় একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। এখনো পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি। এ অবস্থায় আবার সুনামগঞ্জে মাওলানা মামুনুল হককে অতিথি করে অনুষ্ঠান আয়োজন করা ঠিক হবে না। তিনি মাহফিল না করার জন্য সংশ্লিষ্টদের আহ্বান জানান। কিন্তু আয়োজকেরা তাতে পুরোপুরি সম্মতি দেননি। পরে সভায় থাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এনামুল কবির সরেজমিনে জামালগঞ্জের ওই মাদ্রাসায় গিয়ে আয়োজক, মাদ্রাসার পরিচালক ও স্থানীয় আলেমদের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি সার্বিক বিষয় তুলে ধরার পর আয়োজকেরা মাহফিল স্থগিত করতে রাজি হন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এনামুল কবির প্রথম আলোকে বলেন, ‘দেশব্যাপী জাতির জনকের জন্মবার্ষিকীর নানা অনুষ্ঠান চলছে। কয়েক দিন আগে মাওলানা মামুনুল হক দিরাইয়ে এসে বক্তব্য দিয়ে যাওয়ার পর একটা অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। এই সময় আবার তাঁর সুনামগঞ্জে আসা ঠিক হবে না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়ায় আমরা মাহফিল স্থগিতের আহ্বান জানানোর পর আয়োজকেরা সেটা করেছেন। এ জন্য তাঁদের ধন্যবাদ।’

মাদ্রাসার অধ্যক্ষ কাওসার আহমদ বলেন, ‘প্রশাসন ও জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বানে আমরা মাহফিল স্থগিত করেছি। ২৬ মার্চ পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় অনেক কর্মসূচি আছে। পরে আবার আমরা মাহফিলের তারিখ নির্ধারণ করব।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন