আহত জেলে আবু সালেহর বাড়ি বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের দক্ষিণ বাজিকরখণ্ড গ্রামে। তিনি সুন্দরবনে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন।

সকালে খালের পাশে জাল পাতছিলাম। হঠাৎ পেছন থেকে এসে বাঘ আক্রমণ করে। বহু কষ্টে ছাড়িয়েছি। তখন বাঘটি বনের মধ্যে চলে যায়।
জেলে আবু সালেহ

মোংলার সুন্দরবন ইউনিয়নের সদস্য মাসুমা বেগম বলেন, জাল পাতার জন্য খালের পাড়ে চরে খুঁটি পুঁতছিলেন সালেহ। সেই সময় বাঘ এসে আক্রমণ করে। তখন তিনি চিৎকার করে খালের মধ্যে পড়েন। পানির মধ্যে পড়লেও বাঘ তাঁকে ধরতে এগিয়ে আসছিল। তখন নৌকায় থাকা অন্যরা এগিয়ে এলে বাঘটি বনের মধ্যে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে দূরে থাকা সঙ্গী হানিফ ও সালেহর চাচাতো ভাই আসাদুল সরদার তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন।

আবু সালেহর সঙ্গী মো. হানিফ বলেন, ‘আমরা মাছ ধরতে একসঙ্গে বনে গিয়েছিলাম। সকাল পৌনে সাতটার দিকে জাল পাততে আবু সালেহ নৌকা থেকে খালের পাড়ে নামে। এ সময় একটি বাঘ পেছন থেকে তার ওপর আক্রমণ করে। বনের মধ্যে থেকে বাঘটি সালেহর ডান ঘাড়ের দিকে লাফ দিয়ে পড়ে। তখন সেও লাফ দিয়ে চিৎকার করে খালে মধ্যে পড়ে। পরে আমরা তাকে উদ্ধার করি। বাঘের আক্রমণে আবু সালেহর ডান হাত, মাথা ও ঘাড়ে ক্ষত হয়েছে।’

আবু সালেহ বলেন, ‘আমরা বন বিভাগের অনুমতি নিয়ে মাছ ধরি। সকালে খালের পাশে জাল পাতছিলাম। হঠাৎ পেছন থেকে এসে বাঘ আক্রমণ করে। বহু কষ্টে ছাড়িয়েছি। তখন বাঘটি বনের মধ্যে চলে যায়।’

মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ফয়সাল হোসেন বলেন, রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাঘের আক্রমণে আহত ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঁচড় ও ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে। তাঁকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে তাঁর শারীরিক অবস্থা ভালো।

এ বিষয়ে রোববার সন্ধ্যায় সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক মো. শহিদুল ইসলাম হাওলাদার মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, এক জেলের ওপর বাঘের আক্রমণের বিষয়ে শুনেছেন। এ বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। তবে এখনো তাঁরা নিশ্চিত হতে পারেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন