সুরমা-কুশিয়ারার পানিতে ভাটার টান

বিজ্ঞাপন

বৃষ্টি ছাড়া দুই দিন পানি বাড়ার পর তৃতীয় দিন থেকে সিলেটের প্রধান দুই নদী সুরমা ও কুশিয়ারার পানিতে ভাটার টান পড়েছে। বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী কুশিয়ারার উৎসমুখ অমলসিদে পানি কমছে। একই সঙ্গে সীমান্ত নদী হিসেবে পরিচিত লোভার সংযোগ অংশ সুরমা নদীর পানিও কমছে।

আজ বুধবার সকাল ও দুপুরে দুই দফা পানি পরিমাপ করে এই তথ্য জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী মুহাম্মদ শহীদুজ্জামান সরকার।

পাউবো জানায়, গত রোববার ও সোমবার সিলেটে কোনো বৃষ্টিপাত ছাড়াই কুশিয়ারার অমলসিদে পানি বাড়ছিল। গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে সিলেটের কানাইঘাটের সীমান্তবর্তী লোভছড়া দিয়ে প্রবাহমান লোভা নদীর পানিও বাড়ছিল। এতে করে সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টেও পানি বাড়ছিল। বৃষ্টিপাতহীন অবস্থা আজ সকাল ও দুপুরেও ছিল। তবে কুশিয়ারার অমলসিদ ও সুরমার কানাইঘাট এবং লোভা নদীর যেসব পয়েন্টে পানি বাড়ছিল, সেখানে পানি কমতে শুরু করেছে।

পাউবোর দৈনিক পানির স্তর-সম্পর্কিত তথ্যে (ডেইলি ওয়াটার লেভেল ডেটা) দেখা গেছে, গতকাল সন্ধ্যায় কুশিয়ারার অমলসিদ পয়েন্টে ১৪ দশমিক ৬৭ মিটার দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল। আজ সকাল ৬টায় সেখানে ১৪ দশমিক ৪০ মিটার, সকাল ৯টায় ১৪ দশমিক ৩৬ মিটার ও দুপুর ১২টায় ১৪ দশমিক ৩২ মিটার দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়।

কুশিয়ারার অমলসিদ পয়েন্ট ছাড়াও বিয়ানীবাজারের শেওলা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও মৌলভীবাজারের শেরপুর পয়েন্টে পানি কমছিল। এর মধ্যে বিপৎসীমার ওপরে থাকা ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে পানি গতকাল সন্ধ্যায় ৯ দশমিক ৭৯ মিটার থেকে নেমে আজ দুপুরে ৯ দশমিক ৭০ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে বিপৎসীমা ৯ দশমিক ৪৫ মিটার।


লোভা নদীর সংযোগ অংশে সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টে ১২ দশমিক ০৪ মিটার থেকে কমে আজ সকালে ১১ দশমিক ৮৯ মিটার দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। সকাল ৯টায় পানি আরও এক দফা কমে দুপুর ১২টায় ১১ দশমিক ৮৫ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হয়।

কানাইঘাট পয়েন্টে সুরমার সঙ্গে মিলিত হওয়া লোভা নদীর পানিও বাড়ছিল। লোভার পানি ১৩ দশমিক ০৩ মিটার থেকে নেমে আজ সকালে ১২ দশমিক ৭৮ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হয়। দুপুর ১২টায় লোভার পানি ১২ দশমিক ৬৯ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

কানাইঘাট পয়েন্ট ও লোভা নদীতে পানি বাড়ায় সুরমা নদীর সিলেট শহর পয়েন্টেও পানি বাড়ছিল। আজ সকাল থেকে পানিতে ভাটার টান পড়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় সুরমা নদীর সিলেট পয়েন্টে পানি ৯ দশমিক ৬২ পয়েন্ট থেকে নেমে আজ দুপুর ১২টায় ৯ দশমিক ৪৫ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

সুরমা ও কুশিয়ারা সিলেট অঞ্চলের দুটি দীর্ঘতম নদী। পাউবোর নদ-নদী পর্যবেক্ষকেরা বলছেন, বৃষ্টিপাত ছাড়াই দুটো নদীর উৎসমুখ এলাকায় গত দুই দিন পানি বাড়ায় নতুন করে যে শঙ্কা তৈরি হয়েছিল, আজ বুধবার সকাল থেকে তা কাটতে শুরু করেছে। আজ ২৪ ঘণ্টা পানি কমার ধারা অব্যাহত থাকলে দুটো নদীর পানিতে ভাটার টান পড়বে। এতে করে দুই নদীর সংযোগ নদ-নদীতেও পানি কমবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন